সর্বশেষ
রবিবার ১২ই ফাল্গুন ১৪২৪ | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

মনের জোর বাড়িয়ে তুলতে যা করবেন

2017-09-12 15:40:10

575865087_1505209210.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
সফল হতে চাইলেই তো আর সফল হওয়া যায় না। তবে সফল হতে গেলে যেটা সবার আগে প্রয়োজন। তাহলো মানসিকভাবে শক্ত হওয়া। পরিস্থিতি যে সব সময় আপনার অনুকূল হবে তা কিন্তু নয়। পরিস্থিতি আপনার প্রতিকূলেও যেতে পারে, এটা অবশ্যই মাথায় রাখা দরকার। তবে মানসিক ভাবে শক্ত হওয়ার জন্য নিজের মনকেই সবার আগে স্থির করতে হবে। কিন্তু অনেকেই মনের জোর না বাড়িয়ে নিজের ভাগ্যকেই দোষারোপ করতে থাকেন। তবে ভাগ্যকে দোষারোপ না করে নিজের মনের জোড় বাড়াতে চেষ্টা করুন।

একবার ভেবে দেখুন, জীবনটা একেক দিনে একেক রকম হয় কেন? কখনো হতাশার, মন খারাপের আবার কখনো আনন্দের-অনুপ্রেরণার। আপনার একেকটা দিন একেক রকম কেন হচ্ছে? মনোবিদ অ্যামি মরিন বলেছেন, ‘আমাদের দিন কেমন কাটবে, সেটা নির্ভর করছে মানসিক অবস্থা-মনের জোরের ওপর।’

তাই এবার দেখে নিন কীভাবে নিজের মনের জোড় বাড়িয়ে জীবনকে উপভোগ্য করে তুলবেন।

কৃতজ্ঞতাবোধ প্রকাশ :
আপনার গাড়ির চালক কিংবা ঘরের গৃহকর্মীকে শেষ কবে ধন্যবাদ জানিয়েছেন? মনে মনে কৃতজ্ঞ হওয়ার চেয়ে কৃতজ্ঞতাবোধ প্রকাশ করুন মুখে! অন্যকে ধন্যবাদ জানিয়ে, শুভেচ্ছা জানিয়ে দিন শুরু করুন। কৃতজ্ঞতা বোধের অভ্যাস করতে বেশি সময় কিন্তু লাগে না— দুই থেকে তিন মিনিটের মধ্যেই কৃতজ্ঞতাবোধ প্রকাশ করা শুরু করতে পারেন।

নিজের চেনা পরিবেশ থেকে বাইরে আসুন :
প্রতিদিন একই কাজ করতে করতে আমাদের মধ্যে আলস্য ভর করে। িজেই আলস্য কাটানোর উপায় তৈরি করতে পারেন। যে পথ ধরে প্রতিদিন বাজারে যান, অন্য পথে এখন থেকে বাজারে যাওয়া-আসার অভ্যাস করতে পারেন। লিফটের বদলে সিঁড়ি দিয়ে হেঁটে চলার নতুন অভ্যাস করুন।

নিজেকে একা সময় দিন :
দৈনন্দিন জীবনের ব্যস্ততাকে একপাশে রেখে দিনের কোনো একটি সময় নিজেকে সময় দিন। মিনিট দশেক সময় দিন। একাকী এই সময়ে নিজের সঙ্গে নিজে কথা বলুন, নিজের সমস্যাগুলো কী কী, জীবন ১০ বছর পরে কোথায় যাবে, তা নিয়ে ভাবুন। ছুটির সময় টিভি না দেখে বই পড়ায় বেশি সময় দিন, কিংবা ছাদের এক কোণে নিজের জন্য একটু সময় বের করে নিন। তাছাড়া তৈরি করতে পারেন বাগান।

দক্ষতা বাড়ান :
ভালো প্রযুক্তি ব্যবহার জানেন কিংবা অন্য কোনো কাজে দারুণ দক্ষ আপনি? এগুলোকে আপনি নিজের সুপার পাওয়ার ভাবলেও এগুলো আসলে তা নয়! আপনি হয়তো খুব সকালে ঘুম থেকে ওঠেন, কিংবা যেকোনো সমস্যার গাণিতিক ও কার্যকর সমাধান নিয়ে ভাবতে পারেন— এসবই আপনার সুপারপাওয়ার। কী নিয়ে চিন্তা করতে হয়, তা না ভেবে কীভাবে চিন্তা করতে হয়, তা-ই জানা সুপারপাওয়ার। ছুটির সময় নিজের দুর্বলতা আর শক্তিগুলো একটি কাগজে লিখে আগামী ছয় মাস কীভাবে সুপারপাওয়ার বাড়াবেন, তা নির্ধারণ করুন।

সমস্যাকে সুযোগ হিসেবে তৈরি করুন :
অফিসে দেরি করে যান বলে বসের রাগ আপনার ওপর ঝরে? ঘুম থেকে দেরিতে ওঠেন বলেই তো দেরি হয়, আবার দেরি করে অফিসে গেলে কাজের চাপ, মনের চাপও বেশি থাকে। অফিসে প্রতিদিন নির্ধারিত সময়ের এক ঘণ্টা আগে আসুন, বাড়তি সময়টায় বই পড়ুন, পত্রিকা পড়ুন, সারা দিন কী কাজ করবেন, তা ঠিক করে নিন— এভাবে সমস্যা থেকে সুযোগ তৈরি করে নিন। ছুটির দিনেও প্রতিদিন ভোরে ঘুম থেকে হাঁটতে বের হতে পারেন।

ঢাকা, 2017-09-12 15:40:10 (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি 24 বার পড়া হয়েছে