bdlive24

ডিএমপি’র মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা

মঙ্গলবার সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৭, ০৬:৫০ পিএম.


ডিএমপি’র মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা

বিডিলাইভ রিপোর্ট: ঢাকা মহানগর পুলিশে ডিএমপি ভালো কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার দেওয়া হয়। প্রতি মাসের ন্যায়ের তুলনায় এবারও  বিজয়ীদের হাতে নগদ অর্থ পুরস্কার তুলে দেন ডিএমপির কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

আজ মঙ্গলবার সকাল ১০ টার সময়ে ডিএমপির সদর দপ্তরে চলতি বছরের আগস্ট মাসের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় এসব পুরষ্কার দেওয়া হয়।

আগস্ট মাসে ঢাকা মহানগর পুলিশের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে তেজগাঁও বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন পল্লবী জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার এবিএম জাকির হোসেন, এছাড়াও শ্রেষ্ঠ পুলিশ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিকদার মো. শামীম হোসেন, কদমতলী থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. সাজু মিঞা, দারুসসালাম থানার পরিদর্শক অপারেশন খন্দকার সামছুজ্জামান, শ্রেষ্ঠ উপপরিদর্শক এসআই যৌথভাবে নির্বাচিত হয়েছেন পল্লবী থানার মো. বিল্লাল হোসেন ও কদমতলী থানার প্রদীপ কুমার কুন্ডু।

শ্রেষ্ঠ সহকারী উপপরিদর্শক এএসআই যৌথভাবে নির্বাচিত হয়েছেন মিরপুর মডেল থানার এম এ রিয়াজ ও মতিঝিল থানার মো. হেলাল উদ্দিন। শ্রেষ্ঠ ওয়ারেন্ট তামিলকারী অফিসার হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন মিরপুর মডেল থানার সহকারী উপপরিদর্শক এএসআই এম এ রিয়াজ, শ্রেষ্ঠ অস্ত্র উদ্ধারকারী অফিসার বনানী থানার উপপরিদর্শক জব্বার হোসেন, শ্রেষ্ঠ বিস্ফোরক উদ্ধারকারী অফিসার  কোতওয়ালী থানার উপপরিদর্শক মো. মাহবুব, শ্রেষ্ঠ মাদকদ্রব্য উদ্ধারকারী অফিসার দারুসসালাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস) খন্দকার সামছুজ্জামান, শ্রেষ্ঠ চোরাই গাড়ি উদ্ধারকারী অফিসার কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিকাদর মো. শামীম হোসেন।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের বিভাগে শ্রেষ্ঠ বিভাগ হয়েছে ডিবি-সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার নির্বাচিত হয়েছেন ক্যান্টমেন্ট জোনাল টিমের (ডিবি-উত্তর), জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার গোলাম সাকলাইন।

চোরাই গাড়ি উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার হয়েছেন গাড়ি চুরি উদ্ধার ও প্রতিরোধ টিমের ডিবি পূর্ব সহকারী পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ বশির উদ্দিন। অস্ত্র উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম পল্লবী জোনাল টিমের জেষ্ঠ্য সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. শাহাদত হোসেন সুমা, বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ সেনসেশনাল মার্ডার টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার এ জেড এম তৈমুর রহমান, মাদকদ্রব্য উদ্ধারে শ্রেষ্ঠ টিম ক্যান্টমেন্ট জোনাল টিমের (ডিবি-উত্তর) জেষ্ঠ্য সহকারী পুলিশ কমিশনার গোলাম সাকলাইন।

অজ্ঞান ও মলম পার্টি গ্রেপ্তারে শ্রেষ্ঠ টিম সিরিয়াস ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. নজরুল ইসলাম।

ট্রাফিকের শ্রেষ্ঠ বিভাগ নির্বাচিত হয়েছে ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশের উত্তর বিভাগ। শ্রেষ্ঠ সহকারী পুলিশ কমিশনার হয়েছেন লালবাগ জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার হারুন অর রশিদ। শ্রেষ্ঠ ট্রাফিক পরিদর্শক হয়েছেন লালবাগ জোনের সাইফুল ইসলাম, শ্রেষ্ঠ সার্জেন্ট মো. মহিবুল্লাহ।

বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃতরা হলেন যারা- হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটনে যৌথভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- ডেমরা থানার উপপরিদর্শক হুমায়ন কবির এবং যাত্রাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক বিল্লাল আল আজাদ।

মামলা রহস্য উদঘাটন ও ভিকটিম উদ্ধারে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- মো. চকবাজার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত)  মোরাদুল ইসলাম, পল্লবী থানার উপপরিদর্শক মাজেদুল ইসলাম এবং উইমেন সাপোর্ট সেন্টার অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশনের উপপরিদর্শক নাছিমা জাহান দিপু। ডাকাত গ্রেপ্তারে যৌথভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- কোতয়ালী জোনাল টিম ডিবি দক্ষিণের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মাহমুদা আফরোজ লাকী ও সিরিয়াস ক্রাইম এন্ড ইনভেস্টিগেশন বিভাগের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার এ জেড এম তৈমুর রহমান।

ভূয়া পুলিশ গ্রেপ্তারে যৌথভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- মতিঝিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. ওমর ফারুক ও উত্তরা ট্রাফিক বিভাগের সার্জন্ট মেহেদী হাসান।

ছিনতাইকারী গ্রেপ্তারে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক মেসবাহ উদ্দিন, নিউমার্কেট ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট আস্তিক দেব শর্মা, সবুজবাগ ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট নূরতাজুল, মতিঝিল ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট রনি আহমেদ ও ওয়ারী   ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট তানজিলা।

খুন মামলার আসামি গ্রেপ্তারে ও ক্লুলেস মামলার রহস্য উদঘাটনে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- ডেমরা জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম, মুগদা থানার উপপরিদর্শক মো. কাইয়ুম হোসেন, শাহজাহানপুর থানার মো. জিয়া উদ্দিন ও তেজগাঁও থানার মবিন আহমেদ ভূইয়া।

জঙ্গি গ্রেপ্তারে পুরস্কৃত হয়েছেন- সাইবার সিকিউরিটি এন্ড ক্রাইম বিভাগের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. নাজমুল ইসলাম, ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তিকারী ব্যক্তি গ্রেপ্তারে ক্যান্টমেন্ট জোনাল টিমের  ডিবি উত্তর জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার মো. গোলাম সাকলায়েন, পুলিশের সহকারী সুপার এএসপি হত্যা চেষ্টার আসামি গ্রেপ্তারে ডিবি পশ্চিমের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার মো. শাহাদত হোসেন সুমা, প্রতারক গ্রেপ্তারে সাইবার সিকিউরিটি এন্ড ক্রাইম বিভাগের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার  মো. আজহারুল ইসলাম মুকুল, আসামি গ্রেপ্তার ও মাদক উদ্ধারে পল্টন মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাহমুদুল হক, দালাল গ্রেপ্তারে বিমানবন্দর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. এজাজ শফী।

এছাড়াও গণধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তারে উত্তরখান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) খন্দকার নাসির উদ্দিন, আসামি গ্রেপ্তার ও লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধারে যৌথভাবে গেন্ডারিয়া থানার উপপরিদর্শক মো. রুবেল মল্লিক ও বনানী থানার মো. জব্বার হোসেন। সিএনজি চালক গ্রেপ্তারে মহাখালী ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট মো. জসিম উদ্দিন মোল্লা।

আসামীসহ চোরাই গাড়ি উদ্ধারে সম্মিলিতভাবে পুরস্কৃত হয়েছেন- উত্তরা ট্রাফিক জোনের সার্জেন্ট এস এম আলিউজ্জামান, মৃত্যুঞ্জয় দত্ত ও গুলশান থানার সহকারী উপপরিদর্শক মো. মুরাদ হোসেন।

ট্রাফিক সচেতনতামূলক বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃতরা হলেন- ওয়ারী ট্রাফিক জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মো. সাইদুল ইসলাম, শাহবাগ ট্রাফিক জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার উখিং মে ও সবুজবাগ ট্রাফিক জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার মো. রকিবুল হাসান।

বিট পুলিশিং এ বিশেষ পুরস্কারে পুরস্কৃতরা হলেন- রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার এইচ এম আজিমুল হক, ডেমরা জোনের জেষ্ঠ্য সহকারী কমিশনার ইফতেখারুল ইসলাম, কামরাঙ্গীরচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহীন ফকির, যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনিছুর রহমান ও গেন্ডরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী মিজানুর রহমান।

এছাড়াও বিশেষ ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃতরা হলেন- গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার এস এম মোস্তাক আহমেদ খান, ইন্টেলিজেন্স এন্ড এ্যানালাইসিস বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. আলমগীর কবির, গণমাধ্যম ও জনসংযোগ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. মাসুদুর রহমান, রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মো. মারুফ হোসেন সরদার, ডিএমপির অর্থ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার, শ্যামল কুমার মুখার্জী, প্রটেকশন বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার হামিদা পারভীন, মিরপুর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদ আহাম্মদ, কাউন্টার টেরোরিজম ও সিস্টেম এ্যানালিস্ট বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার শারমীন আফরোজ।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার বলেন- ঈদুল আযহা ও শোকাবহ আগস্ট মাসের আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি সুন্দর রাখার জন্য ডিএমপির সকল পুলিশ সদস্যকে আন্তরিক ধন্যবাদ। আপনাদের কাজে সমাজ ও রাষ্ট্রের বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন। আপনাদের কাজে সন্তুষ্ট হয়ে প্রধানমন্ত্রী আপনাদের সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন বলে জানান ডিএমপি কমিশনার।


ঢাকা, সেপ্টেম্বর ১২(বিডিলাইভ২৪)// জেড ইউ
 
        print

এই বিভাগের আরও কিছু খবর







মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.