সর্বশেষ
শনিবার ৬ই মাঘ ১৪২৪ | ২০ জানুয়ারি ২০১৮

দেশের প্রথম 'ডিজিটাল সড়ক' উদ্বোধন জানুয়ারিতে

বুধবার ১৩ই সেপ্টেম্বর ২০১৭

16060339_1505307722.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
আগামী জানুয়ারিতে উদ্বোধনের লক্ষ্যে এগিয়ে চলছে দেশের প্রথম 'ডিজিটাল সড়ক' প্রকল্পের কাজ। রাজধানীর বিমানবন্দর থেকে কাকলী পর্যন্ত দুই দিকে মোট ছয় কিলোমিটার রাস্তায় সবুজায়নের পাশাপাশি নিরাপত্তা ও প্রযুক্তির সমন্বয়ে যাত্রী-বান্ধব বিভিন্ন সুবিধা থাকবে।

ডিজিটাল সড়কের পাশে দেশের সবচেয়ে বড় মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য নির্মাণ শেষ হয়েছে। বিশ্রামাগার, এটিএম বুথ, সুপেয় পানির ব্যবস্থা থাকবে এমন ১০টি ডিজিটাল যাত্রী ছাউনির কাজও অনেকটা শেষ পর্যায়ে। কৃত্রিম ঝরনা, ফোয়ারাসহ দৃশ্যমান স্থাপনাগুলো ইতোমধ্যেই পথচারীদের দৃষ্টি কেড়েছে।

পথচারীরা বলেন, বেঞ্চে বসে আমরা বিশ্রাম নিতে পারছি। সরকার আরো উন্নয়ন করলে আমাদের ভালো হয়। যাত্রী-ছাউনি, ওয়েটিং রুম করছে সব দিক দিয়ে ভালো হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, কয়েক সারিতে ফল, ফুলসহ বনজ এবং ওষধি গাছ লাগানো হচ্ছে। এ কাজ শেষ হবে বর্ষা মৌসুমের মধ্যেই। বিদেশ থেকে আনা বনসাইয়ের সংখ্যা কমিয়ে দেশীয় প্রজাতির গাছের সংখ্যা বাড়ানোর পরিকল্পনার কথাও জানান তারা। দুটি করে ড্রেন তৈরি করায় দ্রুত পানি নিষ্কাশন সম্ভব হচ্ছে বলেও দাবি তাদের।

ভিনাইল ওয়ার্ল্ড গ্রুপের সিইও আবেদ মুনসুর বলেন, 'প্রথম পর্যায়ে ১৬০ টি বনসাই এনেছি আমরা। এর মধ্যে ১০০টি গাছ লাগিয়েছি। এরপর সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তর আর গাছ লাগানোর দরকার নেই বলে জানিয়েছে। এখন পর্যন্ত দেড় থেকে দুই লক্ষ বিভিন্ন দেশী প্রজাতির গাছ লাগানো হয়েছে। বর্তমানে এখানে কিন্তু ১০০টি বনসাইও নেই, অবশিষ্ট আছে মাত্র ৭৬টি গাছ।'

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এ সড়কটিতে গণপরিবহনে যাত্রী ওঠা-নামার জন্য নির্দিষ্ট জায়গা, আলাদা লেন তৈরি, সিসিটিভি ক্যামেরা বসানো ও আলোক সজ্জার ব্যবস্থা থাকবে। ব্যানার, ফেস্টুন তোরণের বদলে থাকবে নির্দিষ্ট স্থানে ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের ব্যবস্থা থাকবে।

সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. সবুজ উদ্দিন খান বলেন, 'বেস্ট ফিটিং জোন থাকবে, সড়কে ওয়াইফাই জোন থাকবে। নতুন যাত্রীরা বুঝতে পারবে কোন গাড়ি কোন দিকে যাবে, ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে সেগুলো প্রদর্শন করা হবে।'

নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান জানায়, 'ইতোমধ্যে প্রায় ৬০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের আশ্বাস- শুধু রাস্তার দুপাশেই নয়, মূল সড়কে জলাবদ্ধতা-মুক্ত, উন্নত ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে।'

নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান জানায়, ৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি চলতি বছরের জুলাই মাসে উদ্বোধনের কথা ছিল। আরও কিছু কাজ যোগ হওয়ায় সময় বাড়ানো হয়েছে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত। সময় টিভি

ঢাকা, বুধবার ১৩ই সেপ্টেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি 0 বার পড়া হয়েছে