সর্বশেষ
বুধবার ৮ই ফাল্গুন ১৪২৪ | ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

পর্তুগালে অভিবাসীদের অধিকার নিয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসের সেমিনার

শুক্রবার ১৫ই সেপ্টেম্বর ২০১৭

1629457089_1505478815.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :
পর্তুগালে বসবাসরত অভিবাসীদের অধিকার সম্পর্কে বাংলাদেশি অভিবাসী ও প্রবাসীদেরকে সচেতন করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ দূতাবাস, লিসবন গতকাল ১৪ সেপ্টেম্বর  “Immigrant Victims of Crime and their rights” শীর্ষক এক সেমিনারের আয়োজন করে।

পর্তুগাল বাংলাদেশ দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী, পর্তুগিজ আইনবিদ, বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, সমাজকর্মী, সাংস্কৃতিক কর্মী, পর্তুগালে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী সহ বিপুল সংখ্যক অভিবাসী ও প্রবাসী বাংলাদেশিগণ এতে অংশগ্রহণ করেন।
 
পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকী স্বাগত বক্তব্যে প্রবাসী বাঙ্গালীদের জন্য সেশনটির গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরেন এবং কোন অভিবাসী বা প্রবাসী কোন অপরাধ বা বৈষম্যের শিকার হলে তার অধিকার এবং আইনগত সহযোগিতা পাবার দিকগুলো নিয়ে ও বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরেন।

অভিবাসন আইন বিশেষজ্ঞ Associação Portuguesa de Apoio à Vítima-(AVPA) জোয়ানা মেনেজেস বলেন, অভিবাসীদের অধিকার নিশ্চিতে এবং মানসিক, অর্থনৈতিক কিংবা আইনগত সহযোগিতা বা পরামর্শ দেবার লক্ষ্যে APAV দীর্ঘ ২৭ বছর যাবত কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমানে পর্তুগালের বিভিন্ন প্রান্তে অবস্থিত ১৭ টি স্থানীয় অফিস এবং বিভিন্ন দেশের অসংখ্য স্বেচ্ছাসেবীদের সমন্বয়ে APAV দুই লক্ষ পঁচানব্বই হাজার অভিবাসী ও প্রবাসীদের সকল ধরনের সহযোগিতা ও পরামর্শ বিনামূল্যে, গোপনীয়তা রক্ষা করে এবং জাতি,  ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে প্রদান করা হচেছ বলে তিনি জানান।



অভিবাসী বা প্রবাসী কোন বাংলাদেশী যে কোন ধরনের অপরাধ বা বৈষম্যের শিকার হলে কিংবা কোন সমস্যায় পড়লে দূতাবাসের মাধ্যমে কিংবা সরাসরি APAV -এর সাথে যোগাযোগ করে সহযোগিতা বা পরামর্শ চাইতে পারেন। এ ধরনের সহযোগিতা পাবার জন্য বাংলাদেশ দূতাবাস-এর টেলিফোন নম্বর +৩৫১-২১২-৬৯৭-০৩৭ (সোমবার হতে শুক্রবার সকাল ৯টা হতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত) অথবা সরাসরি APAV-এর টোল ফ্রি হটলাইন নম্বর ১১৬-০০৬ (যে কোন দিন সকাল ৯ টা হতে বিকাল ৭ টা পর্যন্ত) নম্বরে যোগাযোগ করা যেতে পারে বলেও জানানো হয়।

রনি মোহাম্মদ
লিসবন, পর্তুগাল থেকে


ঢাকা, শুক্রবার ১৫ই সেপ্টেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি 12 বার পড়া হয়েছে