সর্বশেষ
সোমবার ৮ই শ্রাবণ ১৪২৫ | ২৩ জুলাই ২০১৮

রক্তে অতিরিক্ত কোলেস্টেরল কমাতে কার্যকরী মুগডাল

সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭

1917081968_1505728321.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ভেজালের দুনিয়ায় স্বাস্থ্যসম্মত খাবারের খোঁজে থাকেন সচেতন মানুষেরা। কেউ একজন বলল খাবারটা ভালো, অমনি তা পরখ করে দেখছি। স্বাস্থ্যকর ভেবে যে খাবারটা খাচ্ছি, তা আদৌ স্বাস্থ্যকর কিনা তা ভেবে দেখছি না। তবে আজ স্বাস্থ্যকর একটি খাবার সম্পর্কে আলোচনা করা হলো।

আর সেজন্য পুষ্টিগুণ সম্পন্ন খাবারের নাম মুগ ডাল। মুগডালের এত গুণের কথা অনেকের কাছে অজানা। একাধিক গবেষণা বলছে নিয়মিত মুগ ডাল খেলে শারীরিক উপকার মেলে। জেনে নেই মুগডালের সেসব পুষ্টিগুণের কথা।

অতিরিক্ত কোলেস্টেরল কমে যায় :
রক্তে যত কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়তে থাকে, তত হার্টের স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটতে থাকে। এক সময়ে হার্টের কাজ করার ক্ষমতা একেবারে কমে যায়। ফলে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা মারাত্মক বৃদ্ধি পায়। সেই কারণেই তো কোলেস্টেরল লেভেল বাড়ছে, না স্বাভাবিক রয়েছে, সে বিষযে নজর রাখাট একান্ত প্রয়োজন। এক্ষেত্রে মুগডাল বেশ কাজে দেয়।

২০১১ সালে জার্নাল অব হিউম্যান অ্যান্ড এক্সপেরিমেন্টাল টেকনোলজিতে প্রকাশিত একটি স্টাডি অনুসারে মুগডালে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরে জমতে থাকা এল ডি এল বা খারাপ কোলেস্টরলের মাত্রা কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে ব্লাড ভেসেলের ক্ষত সরিয়ে সারা শরীরে রক্তের সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

রক্তচাপকে বেঁধে রাখে :
মুগ ডালে থাকা একাধিক পুষ্টিকর উপাদান রক্তচাপকে স্বাভাবিক রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

প্রোটিনের ঘাটতি মেটায় :
মুগ ডালে উপস্থিত ১৪ গ্রাম প্রোটিন দিনের চাহিদার অনেকটাই পূরণ করতে পারে। ফলে দেহে এই পুষ্টিকর উপাদানটির ঘাটতি হওয়ার কোনো আশঙ্কাই থাকে না। প্রসঙ্গত, মুগ ডালে প্রোটিনের পাশাপাশি আরো অনেক ধরনের এসেনসিয়াল অ্যামাইনো অ্যাসিডও রয়েছে, যা নানাভাবে শরীরের উপকারে লাগে।

ক্যান্সারকে প্রতিরোধ করে :
মুগ ডালে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এ দুটি উপাদান শরীরে উপস্থিত টক্সিক উপাদান বের করে দেয়। ফলে কোষের বিভাজন ঠিক মতো হতে থাকে। ফলে ক্যান্সার সেলের জন্ম নেয়ার আশঙ্কা অনেকাংশেই হ্রাস পায়। শুধু তাই নয়, ম্যালিগনেন্ট টিউমার হওয়ার সম্ভাবনা কমাতেও এই ডালটি বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।

ডায়াবেটিসকে ধারে কাছে আসতে দেয় না :
বর্তমানে সারা বিশ্বের অনেক মানুষ এই রোগে আক্রান্ত। দিনে দিনে সংখ্যাটা আরো বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে মুগ ডাল কিন্তু রক্ষাকবচ হয়ে উঠতে পারে। ২০০৮ সালে চীনের ইনস্টিটিউট অব কর্প সায়েন্সের বিজ্ঞানীরা একটি গবেষণা চালিয়েছিলেন। তাতে দেখা গেছে নিয়মিত মুগ ডাল খেলে রক্তে শর্করার মাত্রা কম হতে থাকে। সেই সঙ্গে ইনসুলিনের কর্মক্ষমতাও বাড়ে। ফলে ডায়াবেটিস রোগ শরীরে বাসা বাঁধার কোনো সুযোগই পায় না।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার উন্নতি ঘটায় :
এই ডালে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস এবং অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপাটিজ, যা একদিকে যেমন ইউমিউনিটি বাড়ায়, তেমনি নানাবিধ সংক্রমণের আশঙ্কাও কমায়।

ওজন কমায় :
নিয়মিত মুগ ডাল খাওয়া শুরু করলে উপকার মিলবে। আসলে এতে উপস্থিত ফাইবার অনেকক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখে। ফলে বেশি বেশি করে খাওয়ার প্রবণতা হ্রাস পায়। আর এমনটা হওয়ার কারণে অতিরিক্ত ফ্যাট জমার আশঙ্কা কমে। সেই সঙ্গে হজম ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কারণেও মেদ কমতে শুরু করে।

ঢাকা, সোমবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ১৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন