সর্বশেষ
শনিবার ৮ই বৈশাখ ১৪২৫ | ২১ এপ্রিল ২০১৮

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের লিসবন দূতাবাস কর্তৃক অভ্যর্থনা

সোমবার, অক্টোবর ২, ২০১৭

114721510_1506918568.jpg
প্রবাসী ডেস্ক :
পর্তুগালের বিভিন্ন প্রান্তে অবস্থানরত কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় বিভিন্ন পর্যায়ে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের লিসবন দূতাবাস কর্তৃক অভ্যর্থনার আয়োজন করে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর, শনিবার পর্তুগালে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকীর লিসবনের বাংলাদেশ হাউসে এই অভ্যর্থনার অায়োজন করা হয়।

এতে পর্তুগালের বিভিন্ন অঞ্চলের বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজের বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, পর্তুগীজ শিক্ষক, অধ্যাপক এবং শিক্ষাবিদসহ শতাধিক অতিথি অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে, আগত বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, অধ্যাপক এবং শিক্ষাবিদগণদের রাষ্ট্রদূত ও দূতাবাসের কর্মকর্তাবৃন্দ স্বাগত জানান। এরপর রাষ্ট্রদূতের শুভেচ্ছা বক্তব্য মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়।

এ সময় অতিথিদেরকে দেশীয় খাবার চটপটি, পিয়াজু, চানাচুর, লাড্ডু ও বিভিন্ন পিঠা ও পানীয় দিয়ে আপ্যায়ন করা হয়। বাংলাদেশি শিক্ষার্থী এবং পর্তুগালের শিক্ষাবিদগণের উপস্থিতিতে এই সময় বাংলাদেশ হাউসের চত্বরটি কিছু সময়ের জন্য উৎসব মুখর হয়ে ওঠে।

অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে, রাষ্ট্রদূত শিক্ষার্থীদের সাথে আলাপচারিতা মাঝে খোঁজ খবর নেন এবং তাদের বিভিন্ন সুবিধা-অসুবিধার কথা মনোযোগ দিয়ে শোনেন। বাংলাদেশ থেকে আরো বেশি সংখ্যায় শিক্ষার্থীদের পর্তুগালে পড়তে আসার জন্য উৎসাহিত করতে বর্তমান শিক্ষার্থীরা ভূমিকা রাখতে পারে বলে রাষ্ট্রদূত আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এরপর বাংলাদেশি শিক্ষার্থী অনিক রায় ও তার সঙ্গীদের নিয়ে ঢোল, মন্দিরা ও কাঁসার বাদ্যের তালে তালে অনুষ্ঠিত হয় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। নোভা বিশ্ববিদ্যালয়ের পিএইচডি শিক্ষার্থী কেএম মোস্তফা আনোয়ার স্বপনের যন্ত্র-সঙ্গীরা শাস্ত্রীয়, রবীন্দ্র সঙ্গীত গাইলেন এবং 'আমি বাংলার গান গাই' জনপ্রিয় লোক সঙ্গীতের মূর্ছনায় সকলকে বিমোহিত করেন সাংবাদিক নাইম হাসান পাভেল।

মেডিকেল শিক্ষার্থী রাখি চন্দ রায়ের রবীন্দ্র সঙ্গীত এবং বাংলাদেশি শিক্ষার্থী সুমাইয়া ও সাবিনা নৃত্যের তালে তালে সবাইকে মাতাল করে তোলে। বাংলাদেশি সঙ্গীতের সুর, নৃত্যের ঝংকার এবং বাদ্যের তালে এই সময় লিসবনের বাংলাদেশ হাউস এক খন্ড উৎসব মুখর বাংলাদেশে পরিণত হয়।

অনুষ্ঠানের শেষে আগত অতিথিদের বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্তৃক দেশীয় ঐতিহ্যবাহী খাবার দিয়ে নৈশভোজের মাধ্যমে আপ্যায়ন করা হয়।

পর্তুগালের লিসবন থেকে,
রনি মোহাম্মদ

ঢাকা, সোমবার, অক্টোবর ২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ৩২ বার পড়া হয়েছে