bdlive24

ডায়াবেটিসের ১০টি নীরব লক্ষণ

বুধবার অক্টোবর ০৪, ২০১৭, ০৬:৫৭ এএম.


ডায়াবেটিসের ১০টি নীরব লক্ষণ

বিডিলাইভ ডেস্ক: ডায়াবেটিস এমন না যে আপনি একদিন জেগে ওঠলেন এবং হঠাৎ করে আপনার তৃষ্ণা লাগছে, ক্ষুধা লাগছে ও ঘনঘন বাথরুমে যেতে হচ্ছে। ডায়াবেটিস ধীরে ধীরে হয়। বেশিরভাগ মানুষ ডায়াবেটিসের প্রাথমিক পর্যায়, এমনকি মাধ্যমিক পর্যায়েও জ্ঞাত থাকে না যে তাদের ডায়াবেটিস আছে। সেই সাথে আপনি যত সময় ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ না করে পার করবেন, আপনার তত বেশি হৃদরোগ, কিডনি রোগ, অঙ্গচ্ছেদ, অন্ধত্ব এবং অন্যান্য মারাত্মক জটিলতার ঝুঁকি বেড়ে যায়।

ডায়াবেটিসের কিছু নীরব উপসর্গ রয়েছে। এসব উপসর্গের ব্যাপারে লোকে সচেতন বা জ্ঞাত থাকে না বললেই চলে। চলুন জেনে নেওয়া যাক ডায়াবেটিসের ১০টি নীরব লক্ষণ সম্পর্কে-

১. আপনি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পিপাসার্ত হন
প্রচুর পরিমাণে মূত্রত্যাগ আপনাকে বিশুষ্ক বা পিপাসার্ত করে তুলবে। ডবিনস ডায়াবেটিস রোগীদের কমন একটি উপসর্গ লক্ষ্য করেন: ডায়াবেটিস রোগীরা তৃষ্ণা মেটাতে বিভিন্ন পানীয়ের (যেমন- জুস, সোডা, চকলেট মিল্ক) দিকে ঝুঁকে। এসব শর্করাযুক্ত পানীয়ের অতিরিক্ত শর্করা ব্লাডস্ট্রিমকে পূর্ণ করে। এ কারণে রোগীরা সমস্যার দিকে এগিয়ে যায়।

২. আপনি অল্প ওজন হারিয়েছেন
ডায়াবেটিসের একটি ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় হচ্ছে স্থূলতা বা ওজন বেড়ে যাওয়া। অন্যদিকে, কয়েক পাউন্ড ওজন কমে যাওয়া হতে পারে ডায়াবেটিসের নীরব উপসর্গের একটি।

৩. আপনি বাথরুমে বেশি যান
আপনার জন্য সতর্কতামূলক প্রশ্ন হচ্ছে, আপনার রাতে কতবার প্রস্রাবের জন্য জাগার প্রয়োজন হয়? এক বা দুই বার স্বাভাবিক হতে পারে, কিন্তু প্রস্রাব ত্যাগের জন্য জাগরণের আধিক্য ডায়াবেটিসের উপসর্গ হতে পারে।

৪. আপনি অস্থির এবং ক্ষুধার্ত হন
হঠাৎ অস্থির হওয়া এবং অবিলম্বে কার্বোহাইড্রেটর প্রয়োজন দেখা দেওয়া ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য বিরল কিছু নয়। আপনি যদি উচ্চ কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ কোনো কিছু খান, আপনার শরীর একটু অত্যধিক ইনসুলিন নিঃসরণ করে এবং দ্রুত আপনার শর্করা কমে যায়। এটি আপনাকে অস্থির করে তুলবে এবং কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা পাওয়ার জন্য আপনার আকাঙ্ক্ষাকে জাগ্রত করবে। এ অবস্থা আপনাকে ভিশাচ সাইকেল বা দুষ্ট চক্রের দিকে নিয়ে যেতে পারে।

৫. আপনি সবসময় ক্লান্ত হন
আপনি নিশ্চয় প্রতিনিয়ত ক্লান্ত হন। অগ্রসরমান ক্লান্তি মনোযোগ দেওয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ একটি উপসর্গ। এ ক্লান্তি আপনি শরীরে শক্তির জন্য যা খাচ্ছেন তা শরীরে সঠিকভাবে মিশ্রিত না হওয়া এবং যেসব কোষের জন্য এসব খাওয়া হচ্ছে তাদের নিকট শর্করা পৌঁছতে না পারার কারণে হতে পারে।

৬. আপনি বিষণ্ন ও বদমেজাজী হন
আপনার রক্ত শর্করা কাজ না করলে আপনি শুধুমাত্র খারাপবোধ করবেন না, আপনি বদমেজাজীও হতে পারেন। আপনি খুব ক্লান্ত অনুভব করবেন, কোনো কিছু করতে মন চাবে না এবং বাইরে বের হতে চাবেন না, শুধুমাত্র ঘুমাতে ইচ্ছে হবে।

৭. আপনার দৃষ্টি ঝাপসা মনে হয়
ডায়াবেটিসের প্রাথমিক ধাপে চোখের লেন্স ভালোভাবে ফোকাস করতে পারে না, কারণ চোখে শর্করা জমে যা সাময়িকভাবে লেন্সের গঠনের পরিবর্তন করে। তবে আপনি ডায়াবেটিসের কারণে অন্ধ হয়ে যাবেন না। প্রায় ছয় থেকে আট সপ্তাহ পর আপনার রক্ত শর্করা স্থিতিশীল হয়ে যাবে, আপনি আর ঝাপসা দেখবেন না, আপনার চোখ খাপ খাইয়ে নেবে।

৮. আপনার কাটা ও ক্ষত খুব ধীরে সারে
আপনার রক্ত শর্করার মাত্রা উচ্চ হলে শরীরের ইমিউন সিস্টেম এবং শরীর আরোগ্যলাভের প্রক্রিয়া ভালোভাবে কাজ করে না। এ কারণে শরীরের কোথাও কেটে গেলে, ক্ষত হলে কিংবা আঁচড় লাগলে সেরে ওঠতে দেরি হয়।

৯. আপনার পা অসাড় হয়
আপনার যে ডায়াবেটিস আছে তা উপলব্ধি করার আগেই উচ্চ মাত্রার শর্করা নানারকম জটিলতার সৃষ্টি করতে পারে। এসব জটিলতার একটি হচ্ছে কোমল স্নায়ুর ক্ষতিগ্রস্ততা, যা আপনার পায়ে অসাড়তা সৃষ্টি করে।

১০. আপনার ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন ও ইস্ট ইনফেকশন আছে
প্রস্রাবে উচ্চ মাত্রার শর্করা থাকার কারণে যোনিনালী ব্যাকটেরিয়া ও ইস্টের প্রজনন স্থল হয়ে যেতে পারে, যার ফলে ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা মূত্রনালীর সংক্রমণ এবং ইস্ট ইনফেকশন বা ছত্রাক সংক্রমণ হতে পারে।


ঢাকা, অক্টোবর ০৪(বিডিলাইভ২৪)// ই নি
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.