সর্বশেষ
শুক্রবার ৬ই আশ্বিন ১৪২৫ | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

উইন্ডোজ ফোনের মৃত্যুর কথা স্বীকার মাইক্রোসফটের

মঙ্গলবার, অক্টোবর ১০, ২০১৭

1926852998_1507636444.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
মাইক্রোসফটের কর্পোরেট ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বেলফাইওর টুইটারে পরপর কয়েকটি টুইট করে উইন্ডোজ ফোনকে আনুষ্ঠানিকভাবে মৃত ঘোষণা করেছেন। উইন্ডোজ ফোন ভক্তদের নিরাশ করে তিনি জানান, উইন্ডোজ ১০ স্মার্টফোনের জন্য নতুন করে কোনো হার্ডওয়্যার বা সফটওয়্যার তৈরি করছে না মাইক্রোসফট।

মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ ফোন প্লাটফর্মের মৃত্যু এক বছরেরও বেশি সময় আগে হয়েছে, কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি আনুষ্ঠানিকভাবে এটি আগে কখনোই স্বীকার করেনি।

যদিও আশা করা হয়েছিল নতুন নতুন ফিচারসহ উইন্ডোজ ফোন প্লাটফর্মটি মাইক্রোসফট আপডেট করতে পারে কিন্তু এটি এখন পরিষ্কার যে, উইন্ডোজ ফোন প্লাটফর্মে এখন কেবল সার্ভিসিং সেবা পাওয়া যাবে। যারা বর্তমানে উইন্ডোজ ফোন ব্যবহার করছেন তারা শুধু বাগ ফিক্স ও সিকিউরিটি আপডেট পাবে।

বেলফাইওর বলেন, ‘অবশ্যই উইন্ডোজ ফোনে আমরা সেবা অব্যহত রাখবো। বাগ ফিক্স ও সিকিউরিটি আপডেট পাবে ব্যবহারকারীরা। কিন্তু নতুন ফিচার বা হার্ডওয়্যার ডেভেলপে আমরা ফোকাস করছি না।’

গত বছর উইন্ডোজ ১০ আপডেট ভার্সনে নতুন কোনো ফিচার যুক্ত না হওয়ায় ব্যবহারকারীরা হতাশ হয়েছিল। তখনই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল যে, মাইক্রোসফট তাদের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে আর কাজ করছে না।

মাইক্রোসফট গতবছরই তাদের ফোনের ব্যবসা গোটানো শুরু করে, যার ফলে প্রায় তিন হাজার কর্মী ছাটাই করেছে বলে খবর রটেছিল। ফোনে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের পরিবর্তে প্রতিষ্ঠানটি ক্লাউড প্রযুক্তি ব্যবসায় মনোযোগ দিতে আগ্রহী।

বেলফাইওর জানান, তিনি নিজেও অ্যান্ড্রয়েডে আপডেট হয়েছেন এবং উইন্ডোজ ১০ ব্যবহারকারীরা তাদের ফোনে অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহার করতে চাইলেও মাইক্রোসফট তাদের সমর্থন দেবে। মাইক্রোসফট তাদের উইন্ডোজ ফোন প্লাটফর্ম থেকে বেরিয়ে আসার অন্যতম বড় কারণ হচ্ছে, ডেভেলপাররা এই প্লাটফর্মটি নিয়ে কাজ করছে না। প্রতিষ্ঠানটি তাদের উইন্ডোজ ফোনের অ্যাপ স্টোর নিয়ে নানা সীমাবদ্ধতায় ছিল এবং অ্যাপ তৈরির পর সেই অ্যাপের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতেও হিমশিম খাচ্ছিল। উইন্ডোজ অ্যাপ নির্মাণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিনিয়োগের তুলনায় ব্যবহারকারী খুবই কম। আইডিসির জরিপে দেখা যায়, এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত বৈশ্বিক স্মার্টফোন শিপমেন্টের হিসাব অনুযায়ী উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের মার্কেট শেয়ার ০.০৩ শতাংশ।

এটি এখন স্পষ্ট হয়েছে যে, মাইক্রোসফট অবশেষে এই বাস্তবতা মেনে নিয়েছে যে, মানুষজন তাদের ফোনে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের প্রয়োজন অনুভব করছে না। তাই বিগত কয়েক বছর ধরে সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস অ্যাপসের ওপর দৃষ্টি রেখেছে। মাইক্রোসফট তাদের এজ ব্রাউজারকে অ্যান্ড্রয়েড ও আইওএস প্লাটফর্মের জন্য ব্যবহার উপযোগী করেছে।

উইন্ডোজ ফোনে সামগ্রিকভাবে অ্যান্ড্রয়েডের অভিজ্ঞতা দেওয়ার জন্য মাইক্রোসফট একটি অ্যান্ড্রয়েড লঞ্চারও তৈরি করেছে, এতে কাস্টমাইজেশন এবং পিসি শেয়ারিং ফিচারও যুক্ত করা হয়েছে। ফলে সারফেস ব্র্যান্ডের ফোন বা উইন্ডোজ ১০ চালিত স্মার্টফোনের জন্য মাইক্রোসফটের নতুন আরো কোনো হার্ডওয়্যার বাজারে দেখা যাবে না। সূত্র: দ্য ভার্জ

ঢাকা, মঙ্গলবার, অক্টোবর ১০, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // ই নি এই লেখাটি ২৪ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন