bdlive24

জামায়াতের আমিরসহ ৮ নেতা রিমান্ডে

মঙ্গলবার অক্টোবর ১০, ২০১৭, ০৭:৪১ পিএম.


জামায়াতের আমিরসহ ৮ নেতা রিমান্ডে

বিডিলাইভ ডেস্ক: জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ, নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার ও সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ দলের ৮ নেতাকে ১০ দিন করে রিমান্ডের অনুমতি পেয়েছে পুলিশ।

মঙ্গলবার ঢাকার মহানগর হাকিম গোলাম নবী তাদের বিরুদ্ধে পল্টন থানার দুই মামলায় রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে এ আদেশ দেন।

এর আগে ওই আসামিদের আদালতে হাজির করে পুলিশের পক্ষ থেকে প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ১০ দিন করে দুই মামলায় ২০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়।

সোমবার রাত ৮টার দিকে উত্তরা-পূর্ব থানাধীন ল্যাবএইড হাসপাতালের পাশের একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

ডিবির ডিসি (উত্তর) শেখ নাজমুল আলম বলেন, জামায়াত নেতা মকবুল, গোলাম পরওয়ারসহ কয়েকজন উত্তরার ৬ নম্বর সেক্টরের ১১ নম্বর সড়কের ৩ নম্বর বাসায় তৃতীয় তলার একটি ফ্ল্যাটে গোপন বৈঠক করছিলেন। জামায়াতের কেন্দ্রীয় ও চট্টগ্রামের কয়েকজন মিলে সেখানে নাশকতা ও রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র করছিলেন বলে গোয়েন্দা তথ্য ছিল। এমন তথ্য পাওয়ার পর সেখানে অভিযান চালানো হয়। ষড়যন্ত্রের ব্যাপারে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

পুলিশ জানায়, উত্তরার অভিযানে গ্রেফতার অন্যদের মধ্যে রয়েছেন জামায়াতের চট্টগ্রাম মহানগর আমির মো. শাহজাহান, চট্টগ্রাম মহানগর সেক্রেটারি নজরুল ইসলাম, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানের ব্যক্তিগত সহকারী নজরুল ইসলাম খান, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আমির জাফর সাদিক, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম।

সংশ্নিষ্টরা বলছেন, একসঙ্গে জামায়াতের এত সংখ্যক শীর্ষ নেতা ডিবির হাতে ধরা পড়ার ঘটনা এই প্রথম। রাতেই তাদের মিন্টো রোডের গোয়েন্দা কার্যালয়ে নেওয়া হয়। তাদের প্রায় সবার বিরুদ্ধে একাধিক নাশকতার মামলা রয়েছে।

এর আগে গত ২৯ সেপ্টেম্বর কদমতলীতে গোপন বৈঠক চলাকালে জামায়াতের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য ও ঢাকা মহানগরীর দক্ষিণ শাখার আমির নুরুল ইসলাম বুলবুল ও ঢাকা মহানগরীর দক্ষিণের নেতা মঞ্জুরুল ইসলাম ভুইয়া, দক্ষিণের সেক্রেটারি শফিকুল ইসলাম মাসুদসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গোয়েন্দা সূত্রের দাবি, রাজনীতির মাঠে বিরাজমান শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্টের জন্য জামায়াত নেতারা কয়েক মাস ধরে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছিলেন। নতুন করে জ্বালাও পোড়াওয়ের মতো নাশকতা সৃষ্টির জন্য ইস্যু খুঁজছিলেন তারা। এজন্য একাধিকবার গোপন বৈঠকও করেন। অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির জন্য নানাভাবে পাঁয়তারা করলেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় তা ঠেকানো সম্ভব হয়। এরই ধারাবাহিকতায় কেন্দ্রীয় শীর্ষ তিন নেতাসহ চট্টগ্রামের নেতারা সোমবার রাতে উত্তরায় গোপন বৈঠকে বসেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের ১৭ অক্টোবর একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত দল জামায়াতে ইসলামীর তৃতীয় আমির হিসেবে শপথ নেন মকবুল আহমাদ। জামায়াতে ইসলামীর রুকনরা গোপন ভোটের মাধ্যমে তিন বছরের জন্য তাকে আমির হিসেবে নির্বাচিত করেন। এর আগে জামায়াতের সাবেক আমির মতিউর রহমান নিজামীকে গ্রেফতারের পর ৬ বছরেরও বেশি সময় ধরে তিনি দলটির ভারপ্রাপ্ত আমির ছিলেন।


ঢাকা, অক্টোবর ১০(বিডিলাইভ২৪)// ই নি
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.