bdlive24

বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আরও ৯০ হাজার রোহিঙ্গা

শুক্রবার অক্টোবর ১৩, ২০১৭, ০৮:৫৭ এএম.


বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আরও ৯০ হাজার রোহিঙ্গা

বিডিলাইভ রিপোর্ট: গতকাল বৃহস্পতিবার মিয়ানমারের রাখাইন থেকে কমপক্ষে ১০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম সীমান্ত পাড়ি দিয়ে কক্সবাজারে পৌঁছেছেন। বুচিডংয়ের রাখাইন পল্লী থেকে আসা এসব রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, আরও ৯০ হাজার  রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আছেন।

এদিকে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী প্রধান মিন অং হ্লাইং বলেছেন, বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা মুসলিমরা মিয়ানমারের স্থানীয় বাসিন্দা নয়। তারা বাঙালি এবং বাংলাদেশ থেকে সেখানে গিয়েছে বলে তিনি দাবি করেছেন।

তিনি আরও বলেন, ‘এই বাঙালিদের মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ নিয়ে আসেনি, উপনিবেশবাদীরা নিয়ে এসেছিল। তারা এখানকার স্থানীয় নয়, আর রেকর্ডে প্রমাণ আছে উপনিবেশিক আমলে তাদের রোহিঙ্গা বলা হত না, বাঙালি বলা হত।’

গত বুধবার মিয়ানমারের বৃহত্তম শহর ইয়াংগুনে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত স্কট মারসিয়লের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন মিয়ানমারের সেনাপ্রধান। মিন অং এর ফেসবুক পেজে বৃহস্পতিবার সকালে পোস্ট করা এক স্ট্যাটাস সূত্রে এ বৈঠকের খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

অন্যদিকে মিয়ানমারের ‘ডি ফ্যাক্টো’ নেতা অং সান সু চি দেশটির জাতীয় সমন্বয় কমিটির সভায় সহিংসতা কবলিত রাখাইন রাজ্যে দ্রুত পুনর্বাসন কর্মসূচি গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন বলে গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে।

গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে সামরিক অভিযান শুরুর পর বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা। মাঝখানে কয়েকদিন রোহিঙ্গাদের ঢল কিছটা কমে আসলেও চলতি সপ্তাহে তা আবার বেড়েছে।  

রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে অতিমাত্রায় বল প্রয়োগের কারণে মিয়ানমারের শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, সেনা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এই পদক্ষেপ নিচ্ছে ইইউ।

জোটের পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, রাখাইন পরিস্থিতির উন্নতি না হলে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি জোরালোভাবে বিবেচনা করা হবে। এ সংক্রান্ত খসড়া চুক্তিটি ইইউ’র রাষ্ট্রদূতরা অনুমোদন করেছেন এবং আগামী সোমবার পররাষ্ট্র মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে তা স্বাক্ষরিত হবে।

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের কাছে অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম রপ্তাানিতে আগে থেকেই ইইউ’র নিষেধাজ্ঞা ছিল।

মিয়ানমারের ‘ডি ফ্যাক্টো’ নেতা অং সান সু চি দেশটির সহিংসতা কবলিত রাখাইন রাজ্যে অবিলম্বে পুনর্বাসন কর্মসূচি গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে গতকাল ‘দ্য ইকোনমিক টাইমস’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। বুধবার নেপিডোতে দেশটির জাতীয় সমন্বয় কমিটির সভায় সু চি রাখাইনের বিভিন্ন এলাকায় মানবিক ত্রাণ পৌঁছানো, পুনর্বাসন ও উন্নয়নে কার্যকর ও দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান। তবে তিনি সেখানে সংঘটিত ‘জাতিগত নিধন’ এর শিকার হয়ে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের বিষয়ে কোনও কথা বলেননি।


ঢাকা, অক্টোবর ১৩(বিডিলাইভ২৪)// পি ডি
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.