সর্বশেষ
শনিবার ৬ই শ্রাবণ ১৪২৫ | ২১ জুলাই ২০১৮

নিয়মিত জিহ্বা পরিষ্কার না করলে যা হতে পারে

বুধবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৭

10877636_1508303388.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
সকালে ঘুম থেকে উঠে আর কিছু না করলেও নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার করি সবাই। এমনকি ২-৩ বারও দাঁত ব্রাশ করেন অনেকে। কিন্তু যত্ন নিয়ে দাঁত সাফাই করলেও জিহ্বার প্রতি তেমন একটা নজর দেয়া হয় না। তাই শুধু দাঁত পরিষ্কার করলে হবে না। দাঁতের সঙ্গে জিহ্বা পরিষ্কার করাটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

নিয়মিত জিহ্বা পরিষ্কার না করলে কী কী সমস্যা হতে পারে। সাম্প্রতিক এক গবেষণার আলোকপাতে তুলে ধরা হলো-

# অপরিষ্কার জিহ্বায় উপস্থিত জীবাণু, মরাকোশ ও জমে থাকা খাবারের কণা ধীরে ধীরে স্বাদকোরকের কর্মক্ষমতাও নষ্ট করে দিতে পারে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। এমনটা হলে কোনো খাবারের স্বাদ পাবেন না।

# ওরাল থ্রাস্ট একধরনের ইস্ট ইনফেকশন। মূলত, জিভ পরিষ্কার না করার কারণে এই সংক্রমণ মুখের ভিতর হয়। জীবাণুর সংখ্যা বেড়ে যায় মুখের ভিতর। ফলে জিহ্বায় সাদা স্পট পড়ে যায়। এই সমস্যায় অনেকেই ভোগেন। বেশিরভাগই হয়তো জানেন না জিহ্বা সাদা হওয়ার কারণ আসলে ইস্ট ইনফেকশন। জিভ পরিষ্কার করে এর থেকে মুক্তি পাওয়া যায় না।

# অপরিষ্কার জিহ্বা জীবাণুদের বাসস্থান। তাই জীবাণুর আক্রমণ হতে পারে মুখে। এর ফলে দাঁত ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। মাড়ি আলগা হয়ে অকালেই দাঁত পড়ে যেতে পারে। এই সমস্যা এড়াতে রোজ জিহ্বা পরিষ্কার করা শুরু করতে হবে।
 
# দীর্ঘদিন ধরে জিহ্বা অপরিষ্কার থাকলে জিহ্বায় কালো কালো ছোপ পড়ে। নিয়মিত জিহ্বা পরিষ্কার করার মধ্যেও দিয়ে এই কালো ছোপ দূর করা যায়।

# পেট খারাপ হতে পারে জিভ পরিষ্কার না করলে। জিভে জমা জীবাণু খাবার ও জলের সঙ্গে পেটে চলে যেতে পারে। হতে পারে পেট খারাপ !

জিহ্বা পরিষ্কারে সতর্কতা :
দাঁত মাজার মতোই জিহ্বা পরিষ্কার করতে হবে প্রতিদিন। কারণ দাঁত ও জিহ্বা পরিষ্কারের ১২ ঘণ্টার মধ্যেই মুখগহ্বরে আবার ডেন্টাল প্ল্যাক জমা হয়ে সেখানে ব্যাকটেরিয়ার বাসা বানাতে পারে।

খুব শক্ত ব্রাশ ব্যবহার করে বা খুব জোরে জিহ্বা পরিষ্কার করলে ত সৃষ্টি হতে পারে। তাই নরম ব্রাশ দিয়ে হালকাভাবে জিহ্বা পরিষ্কার করতে হবে। জিহ্বা পরিষ্কার করতে গিয়ে ত সৃষ্টি হলে বা আগে থেকেই জিহ্বায় অন্য কোনো ধরনের ঘা থাকলে তা না শুকানো পর্যন্ত ব্রাশ বা টাং স্ক্র্যাপার দিয়ে পরিষ্কারে বিরত থাকতে হবে।

জিহ্বায় কোনো ঘা দেখা গেলে কারণ নির্ণয় ও চিকিৎসার জন্য ডেন্টাল সার্জনের পরামর্শ নিন। কারো কারো ক্ষেত্রে জিহ্বা পরিষ্কারের সময় ব্রাশ বা টাং স্ক্র্যাপার জিহ্বার পেছনের অংশে স্থাপন করলে বমির উপক্রম বা ‘গ্যাগ রিফেক্স’ দেখা দিতে পারে। এক্ষেত্রে জিহ্বা মুখ থেকে সামনের দিকে বের করে এনে জিহ্বা পরিষ্কার করার চেষ্টা চালানো যেতে পারে।


ঢাকা, বুধবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // জে এস এই লেখাটি ২২৩ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন