সর্বশেষ
শনিবার ৮ই বৈশাখ ১৪২৫ | ২১ এপ্রিল ২০১৮

লিটন দাস: ঘরোয়াতে ‘হিরো’, জাতীয় দলে ‘জিরো’

রবিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৭

587974241_1509289969.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
২০১৫ সালে বাংলাদেশ দলে নাম লেখান লিটন কুমার দাস। উইকেটরক্ষক ও ব্যাটসম্যান হিসেবে জাতীয় দলের জার্সিটা গায়ে জড়ান লিটন। সে থেকে আজ পর্যন্ত টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি মিলে মাত্র ২০টি ম্যাচ খেলার সৌভাগ্য হয়েছে তার। এই ২০ ম্যাচেও খুব একটা আহামরি কিছু করতে পারেননি লিটন।  ২টি ফিফটি ঝুলে আছে তার নামের পাশে। শতকের ঘরটা এখনো ফাঁকা।

টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টিতে লিটন দাসের ব্যাটিং গড় যথাক্রমে ২৮.২২, ১৫.৯০ এবং ১৬.৩৩। এমন নাজুক অবস্থা দেখে যে কেউ বলবেন জাতীয় দলে আসলেই ‘জিরো’ লিটন। পাশাপশি ঘরোয়া ক্রিকেটে লিটনের ব্যাটিং ঝলকানি দেখে দিতে হবে হিরোর তকমা। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৪১ ম্যাচে ৩১৮৭ রান করেছেন লিটন। ব্যাটিং গড় ৪৮.২৮। সর্বোচ্চ রান ২১৯। রয়েছে ৯ শতক এবং ১৬টি অর্ধশতক। ‘লিস্ট-এ’ ক্রিকেটে ৬৮ ম্যাচে ২৪২০ রান। সর্বোচ্চ সংগ্রহ ১৩৯। গড় ৩৮.৪১।  ঝুলিতে আছে ৪ শতক ও ১৩টি অর্ধশতকের ইনিংস।

প্রসঙ্গত, ভারতের বিপক্ষে টেস্ট, ওয়ানডে এবং দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে পথচলা শুরু হয় লিটন দাসের। জাতীয় দলের হয়ে ৬ টেস্টে ২৫৪ রান, ১১ ওয়ানডেতে ১৫৯ রান ও ৩ টি-টোয়েন্টি খেলে ৪৯ রান করেছেন লিটন।

ঘরোয়াতে এতটা উজ্জ্বল লিটন দাস দেশের হয়ে মলিন কেন?  উত্তর ভিন্ন কন্ডিশন। আসলে ঘরোয়া আর জাতীয় দলের পিচ কন্ডিশনের মধ্যে রাতে-দিনে তপাৎ। বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেটের মাঠগুলো ব্যাটিংসহায়ক।

উইকেট স্লো কিংবা ম্যাড়ম্যাড়ে। ফলে এমন উইকেট থেকে ব্যাটসম্যানরা রান পায় ঠিকই, বোলাররা উইকেট পায় কিন্তু নিজেকে যাচাই করতে পারে কতটুকু? এ প্রশ্ন ক্রিকেটবোদ্ধাদের বহুদিনের। মাঝে মধ্যে শোনা যায়, ঘরোয়া ক্রিকেটের উইকেট ঢেলে সাজনো হবে। কিন্তু এখনো সেটা শোনার মধ্যেই আছে, বাস্তবে দেখা নেই।

ঢাকা, রবিবার, অক্টোবর ২৯, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // ম. উ এই লেখাটি ৮২ বার পড়া হয়েছে