সর্বশেষ
শনিবার ৬ই শ্রাবণ ১৪২৫ | ২১ জুলাই ২০১৮

জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট; পরিবর্তন ঘটাতে পারে নারীর মস্তিষ্কের

শনিবার, নভেম্বর ৪, ২০১৭

588044051_1509806095.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
নারীদের কাছে জন্মনিরোধের সবচেয়ে জনপ্রিয় পদ্ধতি হচ্ছে ট্যাবলেট। তবে সাম্প্রতিক এক গবেষণা থেকে জানা গেছে, এ ট্যাবলেটের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নারীর মস্তিষ্কে পরিবর্তন ঘটাতে পারে।

অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণ রোধ করতে নারীদের কাছে জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেটই সবচেয়ে বেশি গ্রহণযোগ্য। জার্মানিতে ৬০ লাখেরও বেশি নারী দিনের পর দিন জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট সেবন করেন, হয়তো বা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কথা সেভাবে না জেনেই।

জার্মানির জালসবুর্গ বিশ্ববিদ্যালয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের গবেষকরা জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেটের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে একটি বিপজ্জনক তথ্য উন্মোচন করেছেন। তথ্যটি জানিয়েছেন জালসবুর্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক প্রফেসার হুবার্ট কের্শবাউম। জার্মানের গণমাধ্যম ডয়চে ভেলের এক প্রতিবেদনে এমনটি প্রকাশিত হয়েছে।

ইস্ট্রোজেন ও প্রোজেস্টিন হরমোনের সমন্বয়ে যে অ্যান্টিবেবি পিল তৈরি হয় তার কথাই বলছেন গবেষকরা। এই দুই হরমোনের সমন্বয়ে তৈরি ট্যাবলেট শুধু ডিম্বস্ফোটনই প্রতিরোধ করে না, পাশাপাশি কপাল এবং তার আশেপাশের অর্থাৎ মস্তিষ্কের কাঠামোগত পরিবর্তনও ঘটাতে পারে। বিশেষ করে ২০ থেকে ২৫ বছর বয়সি মেয়েদের ক্ষেত্রে এমনটি হবার আশঙ্কা খুব বেশি থাকে। কারণ, এ সময়ে তাদের মস্তিষ্কের এই সংবেদনশীল জায়গাটা পরিপূর্ণতা পায়।

৩৫ বছরের ওপরে যাদের বয়স বা যাদের অতিরিক্ত ওজন কিংবা মাথা ঘোরার সমস্যা রয়েছ, জন্মনিরোধক মিনি ট্যাবলেট তাদের হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

জন্মনিয়ন্ত্রণ ট্যাবলেট সেবনে অল্পতেই নারীর মেজাজ ওঠা-নামা করে। ভুগতে পারেন তারা বিষন্নতায় অথবা মনে আতঙ্কের ভাব তৈরি হতে পারে। ১০৫৪ জন নারীকে নিয়ে করা এক সমীক্ষা থেকে এই তথ্য জানা গেছে। সমীক্ষায় অংশগ্রহণকারীদের প্রতি দশ জনের একজন নারী ট্যাবলেট সেবনকালীন সময়ে বিষন্নতায় ভোগার কথা জানিয়েছেন।

শুধু তাই নয়, অ্যান্টিবেবি পিল সেবনকালীন সময়ে নারীদের মস্তিষ্কে নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে এবং তা থেকে তাদের স্মৃতিশক্তি কিছুটা লোপ পেতে পারে। এবং কথা বলতে গিয়ে শব্দভান্ডারেও দুর্বলতা দেখা দেয়।

ভালো খবর হচ্ছে, ট্যাবলেট সেবনকালে যেসব সমস্যা দেখা দেয়, ট্যাবলেট বাদ দেয়ার পর আবার সেগুলো চলে যায়। তবে ট্যাবলেট সেবনের সময় যত কম দীর্ঘ হয়, দ্রুত সুস্থ হওয়া তত সহজ।


ঢাকা, শনিবার, নভেম্বর ৪, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // কে এইচ এই লেখাটি ৪২ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন