সর্বশেষ
শনিবার ৮ই বৈশাখ ১৪২৫ | ২১ এপ্রিল ২০১৮

থাইরয়েড গ্রন্থির সুস্থতায় যা খাবেন

রবিবার, নভেম্বর ১২, ২০১৭

931068526_1510438759.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
টাইরোসিন ভিত্তিক হরমোন যা থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত হয়। T3 ও T4 আংশিকভাবে আয়োডিন দ্বারা তৈরি (আণবিক গঠন দ্রষ্টব্য). আয়োডিনের অভাবে T3 ও T4 -এর উৎপাদন কমে যায় এবং থাইরয়েড গ্রন্থি বড় হয়ে গলগণ্ড রোগ সৃষ্টি করে।

স্বাস্থবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, প্রজাপতি আকৃতির এই গ্রন্থি গলার ভেতর সামনের দিকে অবস্থিত। শরীরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজ যেমন- তাপমাত্রা, শ্বাস-প্রশ্বাস, হৃদ-কম্পন, শরীরের ওজন এমনকি নারীদের রজঃচক্র নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।

তাই সঠিক খাবার খাওয়ার মাধ্যমে এই থাইরয়েড গ্রন্থিও সুস্থ রাখা সম্ভব...

১. জিংক:
থাইরেয়েড সুস্থ রাখতে সাহায্য করে। ডাল, আখরোট, শষ্য, কাঠবাদাম প্রতিদিনকার খাবারের যুক্ত করে জিংকের চাহিদা মেটানো সম্ভব।

২. আয়োডিন সমৃদ্ধ খাবার:
ডিম, পালংশাক, রসুন এবং তিলের বীজের পাশাপাশি সামুদ্রিক সবজি এবং মাছ খাওয়ার চেষ্টা করুন। এতে আয়োডিনের চাহিদা পূরণ হবে।

৩. দই:
এটা ভিটামিন ডি এবং প্রোবায়োটিক সমৃদ্ধ যা থাইরয়েডের সুস্থতা রক্ষা করে। থাইরয়েডের অসমতা প্রতিরোধে সহায়তাকারী ভালো ব্যাকটেরিয়ার ভারসাম্য রক্ষা করতে দই সাহায্য করে।

৪. গ্রিন টি:
আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা শরীর থেকে চর্বি কমায়। এছাড়াও যকৃতের চর্বি কমিয়ে সক্রিয়তা বাড়াতে সাহায্য করে, ফলে বিপাক বৃদ্ধি পায়। ভালো ফলাফলের জন্য দৈনিক দুএক কাপ গ্রিন টি পান করুন।

৫. জলপাইয়ের তেল:
শরীরের যাবতীয় কর্মকাণ্ড ঠিকভাবে চলতে ও ওজন নিয়ন্ত্রণ করতে স্বাস্থ্যকর তেল খাওয়া প্রয়োজন। সঠিক ধরনের চর্বি ও তেল খাওয়া হলে বিপাকক্রিয়া বৃদ্ধি করে, ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণ করে এবং অতিরিক্ত ক্যালরি খরচ করতে সাহায্য করে।

জলপাইয়ের তেল অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ, যা বিভিন্ন রোগ যেমন- ক্যানসার, অস্টিওপোরোসিসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে এবং রক্তে সেরোটোনিন বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

ঢাকা, রবিবার, নভেম্বর ১২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এ এম এই লেখাটি ৩০ বার পড়া হয়েছে