সর্বশেষ
শনিবার ৬ই মাঘ ১৪২৪ | ২০ জানুয়ারি ২০১৮

সমাবেশ ঘিরে ঢাকামুখী বিএনপির নেতাকর্মীরা

রবিবার ১২ই নভেম্বর ২০১৭

1204172412_1510453776.png
বিডিলাইভ রিপোর্ট :
দীর্ঘ ১৯ মাস পর আজ রবিবার রাজধানীতে সমাবেশ করতে যাচ্ছে বিএনপি। ফলে নেতাকর্মীদের মাঝে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে।

রবিবারের সমাবেশে নেতাকর্মীদের ব্যাপক সমাগম নিশ্চিত করতে ইতিমধ্যে সারা হয়েছে সার্বিক প্রস্তুতি। ঢাকা ও আশপাশের জেলার নেতাদের করণীয় সম্পর্কে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে ইতিমধ্যে। সমাবেশে যোগ দিতে দূরবর্তী জেলার অনেক নেতাকর্মীও এখন ঢাকামুখী।

দলসূত্রে জানা যায়, মূলত ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও নরসিংদী জেলার নেতাদের কেন্দ্র থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে কর্মীদের নিয়ে যথাসময়ে সমাবেশে উপস্থিত হতে। এসব জেলার নেতাদের অনেকে ইতিমধ্যে ঢাকায় চলে এসেছেন। বেশির ভাগ নেতাকর্মী রবিবার সকালে ঢাকার পথে রওনা হবেন বলে জানা গেছে।

অতীতের মতো পথে যাতে কোথাও কোনো ধরনের বাধা কিংবা সমস্যায় পড়তে না হয় সেজন্য নেতাকর্মীদের বিছিন্নভাবে ঢাকায় আসতে বলা হয়েছে। অনেকে ইতিমধ্যে ঢাকায় চলে এসেছেন।

সবশেষ ২০১৬ সালের ১ মে রাজধানীতে শ্রমিক দিবস উপলক্ষে শ্রমিক সমাবেশ করে বিএনপি। এর আগে ওই বছরের ৫ জানুয়ারি নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার সুযোগ পায় দলটি। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির সংসদ নির্বাচনের দুই বছর পূর্তিতে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে সেই সমাবেশ করে বিএনপি। এরপরে রাজধানীতে সমাবেশ করার সুযোগ পায়নি ১৯৯১ ও ২০০১ সালে সরকার গঠনকারী দলটি।

৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে আজ রবিবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত সমাবেশে বিএনপি-প্রধান খালেদা জিয়া দেশের সামগ্রিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বক্তব্য দেবেন বলে জানিয়েছেন দলটির নেতারা।

প্রথমে ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশ করতে চেয়েছিল বিএনপি। তবে সিপিএ সম্মেলনের কারণে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) ৯ নভেম্বরের পর সমাবেশ করার পরামর্শ দেয়। এরপর ১১ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের ঘোষণা দেয় বিএনপি। তবে যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সেদিন সোহরাওয়ার্দীতে অনুষ্ঠান থাকায় ১২ নভেম্বর ঠিক করে বিএনপি।

সমাবেশের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রথমে মৌখিক ও পরে ২৩ শর্তসহ লিখিত অনুমতি পেয়েছে দলটি। যদিও শুরু থেকেই এবার প্রশাসনের পক্ষ থেকে সমাবেশ করার অনুমতি মিলবে এমন আভাস পেয়ে প্রস্তুতি অনেকটা সেরে রেখেছে দলটি।

বিএনপির নেতাকর্মীরা মনে করছেন, সম্প্রতি দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া লন্ডনে চিকিৎসা শেষে দেশে ফেরার পর হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে এবং রোহিঙ্গাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণের জন্য কক্সবাজার যাওয়ার পথে নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের যে সমাগম হয়েছিল তা রবিবারের সমাবেশেও দেখা যাবে।

সমাবেশে উপস্থিতি নিয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘রবিবার জনগণের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটবে।’


ঢাকা, রবিবার ১২ই নভেম্বর ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // পি ডি এই লেখাটি 6 বার পড়া হয়েছে