সর্বশেষ
শনিবার ৫ই কার্তিক ১৪২৫ | ২০ অক্টোবর ২০১৮

বিশ্বসাহিত্যের কিংবদন্তি 'পিবি শেলি'

রবিবার, নভেম্বর ১২, ২০১৭

663951761_1510469591.jpg
বিডিলাইভ ডেস্ক :
ইংরেজি সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি পার্শি বিশি শেলির জন্ম ১৭৯২ সালের ৪ আগস্ট। রোমান্টিক ধারার এই কবি ইংরেজি কবিতার ছন্দের জাদুকর হিসেবে স্বীকৃত। 'নিঃসঙ্গ আত্মা' ও 'মুক্তির বন্ধন' তার সাহিত্য কর্মের অন্যতম নিদর্শন।

বৃটিশ এই কবি ভালোবাসা, বন্ধুত্ব ও স্বাধীনতার প্রতি ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধাশীল এবং এ কারণে তিনি ফরাসী বিপ্লবের প্রতি আকৃষ্ট হন এবং ঐ বিপ্লবে শরীক হন।

শেলি, জন কিটস এবং লর্ড বায়রন মিলে ইংরেজি সাহিত্যে যে রোমান্টিক ধারার সূচনা করেছিলেন তা আজও অক্ষয়। কাব্য সঙ্কলন ওজিম্যানডিয়াসের জন্য তিনি বিখ্যাত। ওড টু দ্য ওয়েস্ট উইন্ড, টু দ্য স্কাইলার্ক, মিউজিক, হোয়েন সফট ভয়েসেস ডাই, দ্য ক্লাউড এবং দ্য মাস্ক অব এনার্কি তার বিখ্যাত কবিতা।

শেলি রচিত গোথিক উপন্যাস জাসট্রজি এবং সেন্ট আরভিন। ফ্রাঙ্কেনস্টাইন খ্যাত ঔপন্যাসিক মেরি শেলি তার স্ত্রী। শেলির প্রথাবিরোধী জীবনযাপন এবং আপসহীন আদর্শ তাকে সব সময় কোণঠাসা করে রাখত।

অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত জীবনের অধিকারী এই মহান কবি নিজের সাফল্য, স্বীকৃতি দেখে যেতে না পারলেও তার শিল্প কর্মের প্রভাব ছিল তিন-চার প্রজন্মের কবি-সাহিত্যিকদের উপরেও।

শেলির বাবার নাম টিমোলি শেলি। বাড়িতেই প্রাথমিক পড়াশোনা শুরু হয় তার। ইটন কলেজের ছাত্র ছিলেন শেলি। ১৮১০ সালে অক্সফোর্ড কলেজ থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন তিনি।

১৮১১ সালে শেলি ও তার বন্ধু অক্সফোর্ড থেকে বহিষ্কার হয়েছিলেন। ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন কলেজের প্রধান ও বিশপদের তিনি একটা লিফলেট পাঠিয়েছিলেন। লিফলেটে ধর্ম-কর্মের অসারতা নিয়ে একটা রচনা ছিল। ছদ্মনামেই তিনি সেটা লিখেছিলেন।

রচনাটির মূল কথা ছিল যে, 'ঈশ্বরের অস্তিত্বের বিষয়টি বাস্তব সাক্ষ্যপ্রমাণ বা যুক্তি দিয়ে প্রমাণিত না সুতরাং ধর্মীয় বিশ্বাসের বিষয়ে একটি মুক্ত তদন্ত হওয়া উচিত।'

১৮২২ সালে মাত্র ৩০ বছর বয়সে ভূ-মধ্যসাগরে এক নৌকা ডুবিতে মারা যান শেলি।

ঢাকা, রবিবার, নভেম্বর ১২, ২০১৭ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি ২২৮ বার পড়া হয়েছে


মোবাইল থেকে খবর পড়তে অ্যাপস ডাউনলোড করুন