bdlive24

ঢাকাকে নিরাপদ শহর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

সোমবার নভেম্বর ১৩, ২০১৭, ০৮:৫২ পিএম.


ঢাকাকে নিরাপদ শহর করা হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিডিলাইভ রিপোর্ট: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, আমরা ঢাকাকে নিরাপদ শহর করব। পর্যায়ক্রমে এটাকে চট্রগ্রামকেও নিরাপদ শহর করা হবে।

সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশান ওয়েসটিন হোটেলে ৯৬.৪ স্পাইস এফএমের শুভ উদ্ধোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা ঢাকার রাস্তায় বের হলেই সবকিছু পাল্টে যায়। আমরা ১০টায় বের হতে চাইলে বেজে যায় ১১টা। আমাদের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল আমরা যানজট মুক্ত করব। আমরা ধীরে ধীরে সেটা করছি। আমরা একের পর এক ফ্লাইওভার, মেট্রোরেল করছি। ধীরে ধীরে সবকিছুই এসে যাবে। তখন আমরা সেই জায়গাতে যেতে পারব। আমাদের প্রতিশ্রুতি পূরণ করা হবে। ডিএমপি কমিশনার রাজধানীকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রেখেছেন। তিনি চাইলে ট্রাফিকের ব্যবস্থাপনাও সুন্দরভাবে করতে পারবেন।

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, বাংলাদেশের পুলিশ কিন্তু ছোট পুলিশ নয়। বিশাল পুলিশ আমরা নয় বছরে ৮০ হাজার পুলিশ রিক্রুটমেন্ট করতে পেরেছি। আমাদের প্রায় দুই লাখ পুলিশ রয়েছে।

৯৬.৪ স্পাইস এফএম রেডিও ও ডিএমপির মাধ্যমে জানা যাবে ১৫ মিনিট পর পর ঢাকার কোন জায়গার কী অবস্থা। আমাদের ট্রাফিক সমন্ধে প্রশ্ন অনেক। এটা সিটি করপোরেশন নিয়ন্ত্রণ করত। এখন তা পুলিশ নিয়ন্ত্রণ করে। আমরা ঢাকাকে সেইফ সিটি করব। পর্যায়ক্রমে চট্রগ্রামওকে সেইফ সিটি করব। আমাদের অনেক বেগ পেতে হবে সেই জায়গায় যেতে হলে। সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমরা রাস্তায় বের হলে যে দুভোর্গ পোহাতে হয় সেটা থেকে কিছুটা হলেও পরিত্রান পাব।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, এটা আমাদের জন্য ঐতিহাসিক দিন। আমরা স্পাইসের সঙ্গে আলোচনা করেছি। এই সেই মহেন্দ্রক্ষণ। ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের জন্য ডিএমপির ট্রাফিক দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে। উল্টোপথে গাড়ি চালানো বন্ধসহ ট্রাফিকের সকল অনিয়ম বন্ধ করতে অনেক রক্তচক্ষু দেখতে হয়েছে। আমাদের সবাইকে ট্রাাফিক আইন মানতে হবে। তিনি নগরবাসীকে ট্রাফিক আইন মানার আহবান জানান।

রেডিও স্পাই ৯৪.৬ এফএমের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক এবং র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ।
 
আইজিপি বলেন, ট্রাফিক জ্যাম নেই পৃথিবীর এমন কোন শহর নেই। সিঙ্গাপুরে ট্রাফিক জ্যাম নেই। সেখানে টাকা হলেই কেউ গাড়ি কেনেন না। সেখানে রাস্তার চেয়ে গাড়ি কম। আমাদের ট্রাফিক অমানবিক পরিশ্রম করে থাকেন। বিভিন্ন রকম ব্যবস্থাপনা করতে আমাদের জনসাধারণের সহযোগিতায় করে থাকি। আমি ট্রাফিকে একটি ডিসিপ্লিন আনতে চেয়েছিলাম। তাতেও আমরা সফল হয়েছি। কিন্তু পরে তা যে কোন কারণেই ধরে রাখতে পারিনি। আমরা অনেক চেষ্টা করছি ট্রাফিকের সমস্যাগুলো জনগণের কাছে তুলে ধরতে। সেটা জনগণ বুঝতেও পেরেছিল। ঢাকায় একটি রাস্তা বন্ধ হলে সকল রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। আমরা দায়িত্ব পালন করছি নগরবাসীদের সেবা দেওয়ার জন্য। আমাদের যতই সীমাবদ্ধতা থাকনা কেন নগরবাসীদের সেবা দেওয়ার জন্য সবসময় আমরা স্বচেষ্ট থাকব।

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, নগরবাসীদের জন্য আজকে একটি তাৎপর্যপূর্ণ দিন। আধুনিক শহরে ট্রাফিক রেডিও রয়েছে। পশ্চিমাদেশগুলোতে ২৪ ঘন্টাই ট্রাফিক আপগ্রেড দেওয়া হয়। ডিএমপি কমিশনার এবং সেই সঙ্গে রেডিও স্পাই ৯৪.৬ কে জানাই আন্তরিক ধন্যবাদ। সকল ট্রান্সপোর্টে রেডিও রাখার আহবান জানান র‌্যাবের মহাপরিচালক।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ৯৪.৬ স্পাইসের সিইও তাসনিম বর্ষা ইসলাম, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ এক আসনের সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী, ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদসহ পুলিশের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ।


ঢাকা, নভেম্বর ১৩(বিডিলাইভ২৪)// ই নি
 
        print

এই বিভাগের আরও কিছু খবর







মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.