সর্বশেষ
বুধবার ৩রা মাঘ ১৪২৪ | ১৭ জানুয়ারি ২০১৮

ছয় মাসে ৮৫ বার নিরাপদ প্রসব!

সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৫

1042517538_1442837232.png
বিডিলাইভ ডেস্ক :
লিলি বেগম লস্কর। নার্সের কাজ করেন একটি সরকারি হাসপাতালে। ছয় মাসে ৮৫ বার গর্ভবতী হয়েছেন এবং সন্তান জন্ম দিয়েছেন তিনি।  ভারতের  সরকারি নথি সূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।

সরকারের দেওয়া পুরস্কারের লোভে ভারতের আসাম রাজ্যের লিলি বেগম লস্কর নামের ওই নার্স সরকারি নথিতে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন। শেষমেশ ধরাও পড়েছেন। খবর এনডিটিভির।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, প্রসূতি ও শিশুর জন্ম নিরাপদ করতে ভারত সরকারের এক নীতি অনুযায়ী ৫০০ রুপি করে পুরস্কার দেওয়া হয়। শিশু জন্মদানের জন্য সরকারি হাসপাতাল বেছে নেওয়া হলেই শুধু এই পুরস্কার সংশ্লিষ্ট মাকে দেওয়া হয়। তবে আসামের একটি সরকারি হাসপাতালের নার্স লিলি বেগম লস্কর একে আয়ের সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে নেন।

আসামের প্রত্যন্ত করিমগঞ্জ জেলার একটি সরকারি হাসপাতালের নথিতে লিলি বেগম ১৬০টি শিশু জন্মদানের কথা জানান। আর এর মধ্যে ৮৫টির ক্ষেত্রেই নিজেকে মা হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি। এই কারসাজি করে তিনি ৪০ হাজার রুপি হাতিয়ে নেন।

আসাম রাজ্যের রাজধানী গুয়াহাটি থেকে ৩৫০ কিলোমিটার দূরের করিমগঞ্জ জেলার সরকারি কর্মকর্তা সরফরাজ হক বলেন, প্রত্যন্ত হাসপাতালে বিপুল পরিমাণ পুরস্কারের অর্থ যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হয়। বিষয়টি তদন্ত করে নার্স লিলি বেগম লস্করের কারসাজির বিষয়টি ধরা পড়ে।

সরফরাজ হক আরো বলেন, নার্স লিলি বেগম লস্কর নিজের নামের ৮৫টি সন্তান জন্মদানের কথা উল্লেখ করেন। আর অর্থ বিতরণের দ্বায়িত্বও ছিল তাঁরই ওপর। তাই কোনো জবাবদিহিতারও স্বীকার হতে হয়নি তাঁকে।

লিলি বেগম লস্কর অবশ্য দোষ স্বীকার করে অনুতপ্তও হয়েছেন। গত রোববার তিনি এনডিটিভিকে বলেন, ‘আমাদের মতো নার্সদের ওপর অনেক চাপ থাকে, কিন্তু সেই তুলনায় তেমন অর্থ আমরা পাই না। আমি ৮০-এর কিছু বেশি সন্তান জন্মদানের মিথ্যা কথা বলেছি এবং সে জন্য আমি অনুতপ্ত।’

গত ১৭ সেপ্টেম্বর লিলি বেগম লস্করকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। হয়তো তিনি চাকরিও হারাতে পারেন। 

ঢাকা, সোমবার ২১শে সেপ্টেম্বর ২০১৫ (বিডিলাইভ২৪) // এস আর এই লেখাটি 5540 বার পড়া হয়েছে