bdlive24

জেনে নিন কোন রাশির পুরুষ কেমন

বুধবার ডিসেম্বর ০৯, ২০১৫, ০১:০১ পিএম.


জেনে নিন কোন রাশির পুরুষ কেমন

বিডিলাইভ ডেস্ক: সব নারীদের প্রিয় ও প্রচলিত উক্তি আছে, সেটি হলো সব পুরুষই সমান। কিন্তু আসলে কি তাই?

সব পুরুষকে একই দৃষ্টিতে ঠিক না। তাদের সকলের চরিত্রে কিছু বৈচিত্র বিরাজ করছে। আর সব পুরুষের মনও এক নয়।

পুরুষ বলে তার মধ্যে রহস্য নেই, এমনটি কখনো ভাবাও যাবে না। কিন্তু কিভাবে জানবেন একজন পুরুষ কি চিন্তা করছে? কিভাবেই বা জানবেন যে, আপনার প্রতি তার আচরণ কেমন হতে পারে, এসব কিছু জানার উপয় হল তার রাশি।

প্রতিটি মানুষের আলাদা ব্যক্তিত্ব রয়েছে। তবে রাশির উপর ভিত্তি করে একজন পুরুষের বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট লক্ষ্য করা যেতে পারে। এই বৈশিষ্ট লিঙ্গ ভেদে আলাদা আলাদা হয়ে থাকে। যেমন ধরুন মেষ রাশির একটি নারী যে কাজটি করবে, মেষ রাশির পুরুষ হয়তো সেই কাজটি নাও করতে পারে। এসব মূলনীতির উপর ভিত্তি করে জেনে নিন কোন রাশির পুরুষের ব্যক্তিত্ব কেমন হয়।

মেষ রাশির পুরুষ  (২১ মার্চ–১৯ এপ্রিল)
মেষ রাশির পুরুষের মধ্যে ধৈর্য একটু কমই লক্ষ্য করা যায়। তারা ব্যক্তিগত জীবনে অথবা কর্মজীবনে, যে কোনও কাজের চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারেন । তারা যে কোনও রকমের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে থাকেন এবং প্রায় সকল প্রতিযোগিতায়ই বিজয়ী হয়ে থাকেন। তিনি নিজের বিবেচনা অনুযায়ী, নিজের মর্জি মতো চলতে পছন্দ করেন। তিনি চেহারার মাঝে ভয়ানক চিহ্ন লক্ষ্য করা যায়, যেটা অনেক নারীর কাছেই আকর্ষণীয় বটে। তিনি  'খারাপ ছেলে' ভাবটা নিজের মাঝে ফুটিয়ে তুলতে সিদ্ধহস্ত  আর এর জন্যে নারীরা তার প্রতি আকৃষ্ট হয়।

বৃষ রাশির পুরুষ (২০ এপ্রিল– ২০ মে)
একটা কথা আছে না শালিস মানি কিন্তু বড় তালগাছটা আমার। বৃষ রাশির পুরুষের আচরণে এমনটি লক্ষ করা যায়। তার উপরে কেউ কথা বলুক এটা তিনি কখনোই চান না। তিনি সব সময় নিজের সিদ্ধান্ত অটল থাকতে চান। সকল কাজই মনোযোগ সহকারে করে থাকেন। তিনি হয়ে থাকেন বিচক্ষণ এবং পুরনো ধাঁচের মানসিকতার। তার জীবনের আসল লক্ষ্য হলো সুখে শান্তিতে সংসার করা। তার দৈনন্দিন রুটিন সাধারণ এবং গোছালো হয়ে থাকে । তিনি নিজেকে কোন ঝামেলায় জড়াতে চান না “মাটির মানুষ” বলতে যা বোঝায়, সেটাই হলেন তিনি।

মিথুন রাশির পুরুষ (২১মে–২১জুন)
মিথুন রাশির পুরুষরা এমনভাবে সাজিয়ে গুছিয়ে কথা বলে যে কাউকে আকৃষ্ট করে তুলতে পারেন। তিনি অযথা কথা কম বলেন, যা বলেন কাজের কথাই বলেন। তার কথাগুলো একটু মন দিয়ে শুনলেই তার মাঝে আপনি বুদ্ধির ঝিলিক দেখতে পাবেন । সে কখনোই আপনাকে বোর করবে না। কখনো কখনো তার মাঝে দেখতে পাবেন একেবারেই সহজ সরল মনের প্রকাশ, কখনো আবার তার মাঝে থেকে উকি দেবে খুব উঁচুদরের মানসিকতা।  যে কোনও ভালো-খারাপ উভয় দিক দেখতে তিনি পারদর্শী। অনেক বিষয় নিয়ে তিনি কথা বলতে পারেন বটে। তবে মুদ্রার ওপিঠে রয়েছে একটু ভুলোমনা মানুষ, যে কিনা খুব সহজে সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। খুব দ্রুতই তার মেজাজের পরিবর্তন ঘটে। সামাজিক এবং বহুরূপী এই পুরুষের মাঝে রয়েছে যে কোনও সমস্যা সমাধানের দুর্লভ বৈশিষ্ট্য।

কর্কট রাশির পুরুষ (২২জুন–২২জুলাই)
এ রাশির পুরুষ একটু লাজুক এবং রহস্যময় প্রকৃতির। তার চরিত্র চাঁদের দ্বারা প্রভাবিত। প্রথম দেখায় তাকে খুব চুপচাপ মনে হতে পারে। কিন্তু সান্নিধ্যে আসতে পারলে তবেই নিজের খোলস থেকে বের হবেন তিনি এবং আপনি অবাক হয়ে নিজেই আবিষ্কার করবেন  যে, তিনি কত চমৎকার একজন মানুষ। কিন্তু তিনি যতই নম্র হন না কেন, কর্কট রাশির পুরুষকে জোর পূর্বক কোনও কিছু করানো যাবে না, তাতে হিতে বিপরীত হতে পারে। তার মাঝে অনেক রকমের অনুভূতি লক্ষ্য করা যায় । তিনি কখনো কখনো নিজের আত্মরক্ষার জন্য হয়ে উঠতে পারেন একটু মারমুখী। তিনি কষ্ট পেলে নিজেকে গুটিয়ে নেন । কিন্তু তার দেয়ালের পিছনে রয়েছে নিখাদ একজন ভদ্রলোক। তারা পরিবারের প্রতি অনুগত হয়ে থাকেন এবং পরিবারের সুখই তাদের আসল লক্ষ্য। তাদের মাঝে অনেক সময়  অন্যদের মন বুঝে ফেলার ক্ষমতা লক্ষ্য করা যায়।

সিংহ রাশির পুরুষ (২৩জুলাই–২২অগাস্ট)
সিংহ রাশির কোনও পুরুষের আগমন আগে থেকেই আপনি টের পেয়ে যাবেন । তারা নিজেদের উপস্থিত প্রকাশ করতে ভালোবাসে, সেটা হাঁকডাকের মাধ্যমেই হোক বা অন্য কোনও উপায়েই হোক। সবসময় তাকে ঘিরে থাকে শক্তিশালী, উষ্ণ একটি আভা। তিনি জন্মগতভাবেই  নেতৃত্ব দানে পারদর্শী। তিনি সকলের সাথে মিলেমিশে কাজ করতে  ভালবাসেন। নিজের বন্ধুমহলে তিনি সুপরিচিত এবং বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকেন বটে। তবে তিনি একটু একগুঁয়ে হয়ে থাকেন। তিনি কারো না নিয়ে নিজেই  ঠিক করে ফেলেন কি করা উচিৎ। তিনি সবার মনোযোগের মধ্যমণি হয়ে থাকতে ভালবাসেন । তিনি সাধারণত একটু মেজাজি হয়ে থাকেন বটে, তবে যত গর্জে তত বর্ষে না। সবকিছুর অন্তরালে সিংহ পুরুষ আসলে বিড়ালের মতোই আদুরে এবং তার সাথে একটু মিষ্টি আচরণ করলে তিনিও থাকবেন একেবারে খোশ মেজাজে।

কন্যা রাশির পুরুষ (২৩অগাস্ট–২২সেপ্টেম্বর)
কন্যা রাশির নারী যেমন একেবারে তুলতুলে নারী নয়, তেমনি এই রাশির পুরুষকে মেয়েলি ভাবলেও ভুল হবে। তিনি কঠোর পরিশ্রমী হয়ে থাকেন এবং তার ওপরে দেওয়া অর্পিত দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে থাকেন তিন। তিনি নির্ভুল নিখুত ভাবে কাজ করতে পারদর্শী। তুচ্ছ বিষয়েও তার পূর্ণ মনোযোগ থাকে। অন্যকে সাহায্য করতেও তিনি সিদ্ধহস্ত। কন্যা রাশির পুরুষ হয়ে থাকেন ন্যায়পরায়ন এবং সুবিচারি। তার মাঝে ভদ্রতা এবং নিষ্পাপতার মতো দুর্লভ গুণ প্রতিফলিত হয়ে থাকে। তবে তিনি হয়ে থাকেন একটু ছটফটে।

তিনি মাঝে মাঝে নিজের আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেন, কিন্তু তার কাজের মধ্য দিয়েই আবার সেই আত্মবিশ্বাস নতুন করে ফিরে পান । এরা সমালোচনা করতে পছন্দ করে থাকে । তাদের স্বাস্থ্য সচেতনতা এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার দিকে বিশেষ মনোযোগ থাকে । তারা সারাক্ষণ ফুলবাবুটি সেজে থাকতে এবং তারসাথে আশেপাশের পরিবেশটাকেও টিপটপ রাখতে খুব পারদর্শী। জ্যোতির্বিদরা কন্যা রাশির পুরুষদের মাঝে  যে দিকগুলো বিশেষ মনোযোগ দিয়ে ব্যাখ্যা করেছেন সেগুলোর মাঝে অন্যতম হচ্ছে -এরা বুদ্ধিমান ,পরিশ্রমী , বিচার বিবেচনায় দক্ষ ।

তুলা ( সেপ্টেম্বর ২৩- অক্টোবর ২২)
শুধু নিজের জন্য নয়, বরং অন্য সবার জন্য সবসময় চিন্তা করে থাকেন তুলা রাশির পুরুষ। সবাইকেই খুশি রাখতে চান তিনি। তিনি হয়ে থাকেন শান্তিপ্রিয় এবং সবার মাঝে সম্প্রীতি বজায় রাখতে চেষ্টা করেন। সবদিক চিন্তা করার কারণে তিনি দ্রুত কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারেন না। কিন্তু যখন তিনি সিদ্ধাত নিয়ে ফেলেন তবে সেটা মেনে চলাই উত্তম। যে কোনও পরামর্শের জন্য তুলা রাশির বন্ধুটির সাহায্য নিতে পারেন আপনি।

তিনি কোনও রকমের পক্ষপাতিত্ব দেখাবেন না। তুলা রাশির পুরুষের অন্যতম একটি বৈশিষ্ট্য হলো, তিনি সৌন্দর্য পছন্দ করেন। সুন্দর কোনও বস্তু, ঝকঝকে নতুন একটি গাড়ি বা নতুন মডেলের ফোন- এ সবই তার পছন্দ। সুন্দর মানুষও তিনি ভালবাসেন। আরও ভালবাসেন সাহিত্য। সভ্য ও রুচিশীল পুরুষের সব গুণই আপনি খুঁজে পাবেন তার মাঝে।

বৃশ্চিক (অক্টোবর ২৩- নভেম্বর ২১)
বৃশ্চিক রাশির পুরুষকে তুচ্ছ করে দেখবেন না কখনোই। অপ্রয়োজনীয় বিষয় নিয়ে সাধারণত মাথা ঘামান না তিনি। “সিরিয়াস” ধরণের এই মানুষের দৃষ্টিতে পৃথিবীতে রয়েছে শুধুই ভালো এবং শুধুই খারাপ, এই দুইয়ের মাঝামাঝি কিছু নেই। তিনি একা একা থাকতে পছন্দ করেন। সোজাসাপ্টা প্রশ্ন করতে তার জুড়ি নেই। আর এই প্রশ্নের উত্তর গ্রহণ করার ব্যাপারেও তিনি সতর্ক।

বৃশ্চিক পুরুষ নিজের ভাগ্য নিজে গড়ে নেওয়ায় বিশ্বাসী। তিনি নিজের জীবনটাও পরিচালনা করে চলেন নিজের নিয়মে। যুদ্ধে একবার হেরে গেলেও তিনি চেষ্টা করে যান বারবার। স্বাধীনচেতা, নির্ভীক, কঠোর পরিশ্রমী এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষী এই পুরুষ সহজেই জীবনে এগিয়ে যেতে পারেন। নিজের জীবনের ব্যাপারে অন্য কাউকে জানাতে পছন্দ করেন না তিনি, পছন্দ করেন প্রাইভেসি।

খুব দ্রুত তার কাছের মানুষ হয়ে যাবার আশা বা চেষ্টা কোনটাই করবেন না। তিনি এমন এক পুরুষ যাকে পোষ মানানো যায় না। বেশ মেজাজি হয়ে থাকেন তারা, কষ্ট পেলে তার স্মৃতি মনে রাখেন বহুদিন। কিন্তু সময় নিয়ে তাকে জানার চেষ্টা করলে দেখতে পাবেন, আপনার জীবনের সবচাইতে স্পর্শকাতর এবং জ্ঞানী মানুষটি সম্ভবত তিনিই।

ধনু (নভেম্বর ২২ থেকে ডিসেম্বর ২১)
জীবনের পথে কখনই স্থির হয়ে থাকে না ধনু পুরুষ, তারা সর্বদাই ভ্রমণরত। কিন্তু তার মানে এই নয় যে তারা পথভোলা। সত্য, সৌন্দর্য এবং জ্ঞানের অন্বেষণেই তাদের এই ভ্রমন। এ কারণে ব্যক্তি হিসেবে তাদেরকে অনেকটা ছাড় দিতে হয়। সম্পর্কের শৃঙ্খলে বেঁধে রাখতে গেলে তারা নিজেদের বন্দি মনে করেন এবং শৃঙ্খল ভেঙে চলে যান। কিছুটা দার্শনিক মনোভাবের ধনু সবকিছু চিন্তা করে গভীরভাবে। তিনি অন্যের কথা মন দিয়ে শুনতে পছন্দ করেন। মাঝে মাঝে তারা সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন খুব বেশি দ্রুত। কিন্তু যে কোনও পরিস্থিতিতে তারা থাকতে পারেন আশাবাদী।

মকর ( ডিসেম্বর ২২- জানুয়ারি ১৯)
মকর পুরুষকে দেখে যতই শান্তশিষ্ট এবং চুপচাপ মনে হোক, এই বাহ্যিক রূপ দেখে ভুল করবেন না মোটেও। তার চিন্তাভাবনা চলছে ঝড়ের গতিতে। জীবনে যতই বাধা আসুক, ধীরস্থিরভাবে তা ভেঙে ফেলেন মকর পুরুষ। এ কারণে তাকে হতে দেখা যায় বদ্ধপরিকর এবং একই সাথে কঠোর পরিশ্রমী। অধ্যাবসায় হলো তার সবচাইতে বড় গুণ। বেশিরভাগ সময়ে সাফল্য অর্জনের দিকে মন থাকে এই পুরুষের। এ কারণে তার ব্যক্তিত্বে দেখা যায় প্রচ্ছন্ন পরিপক্কতা। তিনি ঝুঁকি নিতে পছন্দ করেন না, ঝামেলা থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করেন।

কুম্ভ (জানুয়ারি ২০- ফেব্রুয়ারি ১৮)
প্রথম দেখায় আন্তরিক মনে হবে কুম্ভ রাশির পুরুষকে। কিন্তু তাতে মনে করবেন না তিনি একেবারেই নরম-সরম। তার হাসিখুশি মুখের পেছনে কাজ করছে প্রখর বুদ্ধিমত্তা। নিজের পক্ষে যতটা সম্ভব, পৃথিবীতে ততটাই ভালো কজ করে রেখে যেতে চান তিনি, আর সেটা করেনও সৃজনশীলতার মধ্য দিয়ে। অদ্ভুত কিছু অভ্যাস থাকতে পারে তাদের। জলের মতোই পরিবর্তনশীল তাদের প্রকৃতি।

কখনো হয়ে থাকেন অসম্ভব রকমের একগুঁয়ে। কুম্ভ পুরুষের অনেক বন্ধু থাকতে পারে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে তিনি খুব খোলামেলা। বেশিরভাগ সময়েই বন্ধুরা ঠিক জানেন না তিনি আসলে কেমন। তার অনুভূতি হতে পারে লুকানো, তার প্রতিক্রিয়া জটিল। তার একেবারে কাছের মানুষ হয়ে ওঠা খুবই কঠিন, এবং তা করতে পারলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করে নেবেন।

মীন (ফেব্রুয়ারি ১৯- মার্চ ২০)
মীন রাশির পুরুষের মাঝে অন্যান্য রাশির বৈশিষ্ট্যের মিশ্রণ দেখা যায়। পৃথিবীর দিকে খুব বেশি নজর থাকে না তার। তার মানে এই, যে তিনি সবকিছুর অন্তর্নিহিত দিকের প্রতি বেশি খেয়াল করেন। আত্মিক চিন্তাভাবনা করে থাকেন প্রায়শই। মীন পুরুষের সাথে কথা বলার সময় আপনার মনে হতে পারে আপনি দুইজন আলাদা মানুষের সাথে কথা বলছেন। অথব এমন একজন আছে আপনার সামনে যার মন পড়ে আছে দুইটি আলাদা জগতে।

মুহূর্তেই গোল্ডফিশ আবার মুহূর্তেই হাঙ্গর হয়ে উঠতে পারেন তিনি! বাইরে থেকে তাকে শান্ত মনে হলেও ঠিক সেই মুহূর্তে হয়তো তার মাঝে চলছে তীব্র অনুভুতির খেলা।

তাকে মনে হতে পারে রহস্যময়, কারণ তার মনে কি চলছে সেটা অনেক সময়েই অন্যদের জন্য, এমনকি তার নিজের জন্যেও দুর্বোধ্য। সাধারণত নিজেদের এই বিচিত্র সব অনুভূতি তারা প্রকাশ করে থাকেন শিল্প-সাহিত্যের মাধ্যমে এবং সৃজনশীলতার ক্ষেত্রে অন্যান্য রাশির চাইতে মীন পুরুষ বেশি সফল হয়ে থাকেন।


ঢাকা, ডিসেম্বর ০৯(বিডিলাইভ২৪)// ম পা
 
        print



মোবাইল থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করুন
android iphone windows




bdlive24.com © 2010-2014
Powered By: NRB Investment Ltd.