কোহলি দিশেহারা হয়ে পড়েছিল: ওয়ার্ন
কোহলি দিশেহারা হয়ে পড়েছিল: ওয়ার্ন

গ্রুপ পর্বের ম্যাচে টস হেরে আগে ব্যাট করেই পাকিস্তানকে গুড়িয়ে দিয়েছিল ভারত। টস জিতে ফিল্ডিং নেয়ার কিছুক্ষণ পরই সৌরভ গাঙ্গুলি টুইটে বলেছিলেন, টস জিতে ফিল্ডিং নিয়ে ভুল করেছে পাকিস্তান। হয়েছেও তাই। ডাক ওয়ার্থ লুইস পদ্ধিতে ১২৪ রানে হারে পাকিস্তান।

গ্রুপ পর্বের সেই লড়াই যে টুর্নামেন্টের ফাইনালে রূপ নিবে সেটা নিশ্চয় কেউ কল্পনাও করতে পারেননি। ভারতের কাছে হারের পর দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে রান তাড়া করেই জেতে পাকিস্তান। আগে ব্যাট করে হারের শঙ্কা পেয়ে বসেছিল কোহলিকেও। তাইতো টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। কিন্তু এতে যে হিতে বিপরীত হবে এটা অন্তত ভাবেননি কোহলিও। উল্টো এমন লক্ষ্য পেলেন ইনিংসের ৮ ওভারেই ম্যাচ হেরে বসেছিলেন। ৩৩৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে আমিরের এক স্পেলে বিদায় নেন রোহিত, কোহলি ও ধাওয়ান। যাদের ব্যাটে ভর করেই এতদূর এসেছে ভারত।

২০০৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে একই ভুল করেছিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি। টস জিতে ব্যাট করতে আমন্ত্রণ জানান অস্ট্রেলিয়াকে। একই সঙ্গে ম্যাচটাও যেন তিনি তুলে দিলেন রিকি পন্টিংয়ের হাতে। শেষ পর্যন্ত ৩৫৯ রানের বিশাল স্কোরের নিচে চাপা পড়ে বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছিল ভারতকে।

ঠিক একই ভুল করলেন বিরাট কোহলি। আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে টস জিতে ব্যাটিংয়ে পাঠালেন পাকিস্তানকে। একই সঙ্গে যেন ম্যাচটাই তুলে দিলেন তিনি। এ কারণে, অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তী শেন ওয়ার্নও বিরাট কোহলির অধিনায়কত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন।

শেন ওয়ার্ন কোহলিকে সরাসরি প্রশ্ন করে বসলেন, ‘কোহলির বোলিং চেঞ্জ দেখে আমার মনে হয়েছে ওর কোনো পরিকল্পনাই নেই ফাইনালের। পাকিস্তান ব্যাটসম্যানদের থামানোর কোনও পরিকল্পনা দেখতে পেলাম না। কোহলিকে দেখে মনে হচ্ছে ক্যাপ্টেন হিসেবে ও দিশেহারা হয়ে গেছে।’

রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে টানা বোলিং করানোরও কঠোর সমালোচনা করেছেন ওয়ার্ন। তিনি বলেন, ‘আমি অশ্বিনের ভক্ত; কিন্তু ফাইনালে ওর বোলিং দেখে আমি দারুণ হতাশ। কোনও নির্দিষ্ট পরিকল্পনা নেই। কোনও বৈচিত্র নেই বোলিংয়ে। সবচেয়ে বড় কথা অধিনায়ক কোহলি মার খাওয়া অশ্বিনকে কেন টানা বোলিং করাল? অশ্বিনকে বসিয়ে অন্য কোনও পার্টটাইম বোলারকেও দিতে পারত। জানি না কী ঘুরছিল কোহলির মাথায়?’

বোলারদের কারণেই মূলত হারতে হয়েছে ভারতকে। এ কারণে ভারতীয় বোলিংকে দিশাহীন বলছেন ধারাভাষ্যকাররা। সৌরভ গাঙ্গুলি বললেন, ‘অতিরিক্ত কিছু করতে গিয়েই ভারতীয় বোলাররা নিজেদের চাপে ফেলে দিয়েছে। বুমরাকে দেখে মনে হল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনাল এবং প্রতিপক্ষ পাকিস্তান- এই দুটো চাপ সামলাতে পারল না। জঘন্য বোলিং ভারতের। একমাত্র ভুবনেশ্বর কুমার ছাড়া আর কোনও বোলার পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানদের আটকে রাখতে পারল না!

ঢাকা, জুন ১৯(বিডিলাইভ২৪)