মুক্তামনির জন্য দোয়া চাইলেন তার বাবা
মুক্তামনির জন্য দোয়া চাইলেন তার বাবা

হাত রেখেই সফল ভাবে অস্ত্রপোচার সম্পন্ন হওয়া মুক্তামনির জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন তার বাবা রাজু মিয়া।

আজ শনিবার সকাল সোয়া ৯ টার সময়ে শুরু হয় মুক্তামনির অস্ত্রপাচার আর শেষ হয় সোয়া ১১টার সময়। প্রায় ২ ঘন্টাব্যাপাী অস্ত্রপাচার শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন অস্ত্রপোচারে অংশ নেয়া চিকিৎসকেরা।

অবশ্য মুক্তামনিকে অস্ত্রপোচারের কক্ষ থেকে আইসিইউতে নেয়ার সময়ে সেখানে উপস্থিত ছিলেন মুক্তামনির বাবা রাজু মিয়া তার মা সাহিদা বেগম এবং চাচা। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মুক্তামনির বাবা রাজু মিয়া।
 
ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের নিবিড় পর্যবেক্ষন কেন্দ্র নেয়ার পরে তার বাবা রাজু মিয়া মুক্তামনিকে দেখতে যায়। সেখানে তিনি মুক্তামনির জন্য কথা বলেন। মুক্তামনি তার বাবার কাছে পানি খেতে চেয়েছিল। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শানুযায়ী তিনি আইসিইউ থেকে বেরিয়ে আসেন। স্বাভাবিক জন্ম নেয়ার দুই বছর পর মুক্তামনরি ডান হাতে ছোট একটি টিউমার দেখা যায়, যা ধীরে ধীরে বড় হতে শুরু করে। গত দুই বছর ধরে তা ব্যাপক আকারে বাড়তে থাকে। গত ১২ জুলাই ঢামকেরে র্বান অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে ভর্তি করা হয় মুক্তামনিকে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মুক্তামনির ব্যাপারে জেনে তার চিকিৎসার সব দায়িত্ব গ্রহণ করনে। পরে স্বাস্থ্য ও পরবিারকল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম মুক্তামনিকে দেখতে আসেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে। মুক্তামনির চিকিৎসার সব দায়িত্ব নেয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়।

গত ২ আগস্ট ১৩ সদস্য বিশিষ্টি একটি মেডিকেল বোর্ড মিটিংয়ের সব ধরনরে সর্তকতা অবলম্বন করে মুক্তামনরি চিকিৎসা করার সিদ্ধান্ত হয়। এরপর তার হাতে অস্ত্রোপচার করা হয়। মুক্তামনির রোগটিকে বিরল রোগ বলা হলেও বায়োপসি করার পর জানা যায় তার রোগটি বিরল নয়। তবে বায়োপসি প্রতিবেদনে মুক্তামনির রক্তনালীতে টিউমার ধরা পড়ে।

ঢাকা, আগস্ট ১২(বিডিলাইভ২৪)